ফাল্গুনের সাজ - Shajgoj ফাল্গুনের সাজ - Shajgoj

ফাল্গুনের সাজ

ফেব্রুয়ারী ৯, ২০১৭

বছর ঘুরে আবার চলে আসছে বসন্ত। আর বসন্তের প্রথম দিনটিকে বরণ করে নেয়ার জন্যে আমাদের উৎসাহের কোনো কমতি নেই। কীভাবে বরণ করে নেবেন বসন্তের প্রথম দিনটিকে? কী পরবেন? কোথায় যাবেন? ইত্যাদি  নিয়ে নিশ্চয়ই প্রস্তুতি চলছে।

কিন্তু মেকাপ? পহেলা ফাল্গুনে মেকাপটা কীভাবে করবেন? কেমন হওয়া উচিত? কীভাবে মেকাপটা করলে মানানসই হবে? তা নিয়ে নিশ্চয়ই অনেক কনফিউশন রয়েছে। তাহলে চলুন জেনে নিই, পহেলা ফাল্গুনে মেকাপের টুকিটাকি বিষয়গুলো।

(১) বেইজ মেকাপ

পহেলা ফাল্গুনে যেহেতু দিনের বেলায়ই বেশীরভাগ বাইরে বের হওয়া হয়, তাই বেইজ মেকাপটা একটু ন্যাচারাল, স্নিগ্ধ হলেই ভালো লাগবে। প্রকৃতির সাথে সাথে আপনার মধ্যেও তাহলে একটা স্নিগ্ধ ভাব ফুটে উঠবে।

বেইজ মেকাপের আগে অবশ্যই নিজের মুখকে মেকাপের জন্যে প্রস্তুত করে নিবেন। এজন্য মুখ ক্লিন করে, স্ক্রাবিং করে নিবেন। এরপর সানস্ক্রিন এবং ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না।

ফাউন্ডেশনের আগে একটা ভালো প্রাইমার অবশ্যই লাগাবেন। যেটা আপনার ত্বকের ধরনের সাথে মানিয়ে যায়। একটি ভালো প্রাইমার আপনার মেকাপকে সারাদিন ভালো রাখতে সাহায্য করবে।

ফাউন্ডেশন হিসেবে বেছে নিন ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন। যেহেতু আমরা একটি ন্যাচারাল বেইজ চাচ্ছি, তাই একগাদা ফাউন্ডেশন এর লেয়ারের চেয়ে একটি ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন ভালো কাজে দেবে। কারণ ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন পরিমানে কম লাগবে, ফলে আপনার অনেক বেশি ফাউন্ডেশন ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়বে না।

সারাদিন অনেকে বেশি ফ্রেশ দেখাতে সাহায্য করবে ক্রিম হাইলাইটিং। আপনার স্কিন শেডের থেকে ২-৩ শেড লাইট একটি কনসিলার দিয়ে করে নিন ক্রিম হাইলাইটিং। কনসিলারটি আপনার চোখের নিচে, কপালে, নাকের উপর, থুতনিতে লাগিয়ে নিন এবং ব্লেন্ড করে ফেলুন। কনসিলারটি  অবশ্যই পাউডার দিয়ে সেট করে নিবেন।

ভুলেও ক্রিম কন্ট্যুরিং করবেন না। দিনের বেলায় ক্রিম কন্ট্যুরিং মেল্ট হয়ে যেতে পারে। কন্ট্যুরিং পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। সবথেকে ভালো হয়, ব্রোঞ্জার পাউডার ব্যবহার করলে। ব্রোঞ্জার আপনার ফেস এ একটা সান-কিসড লুক দিবে। ব্রাশের সাহায্যে ব্রোঞ্জার নিয়ে চিক বোনের নিচের দিকে, কপালে, থুঁতনির নিচে ব্রোঞ্জার লাগিয়ে নিন।

ব্লাশ হিসেবে বেছে নিন, হালকা ধরনের কালার। যেমন-  পিংক, কোরাল, পিচ ইত্যাদি কালার ভালো লাগবে।

যারা পাউডার হাইলাইটার পছন্দ করেন, তারা পাউডার হাইলাইটার লাগাতে ভুলবেন না।

 (২) আই মেকাপ

আই মেকাপের ক্ষেত্রে প্রথমেই চোখের পাতায় আই প্রাইমার লাগিয়ে নিবেন। আই প্রাইমার আপনার আইশ্যাডোকে লং লাস্টিং  করতে হেল্প করবে। আই প্রাইমার না থাকলে কনসিলার ব্যবহার করতে পারেন। তবে এটি চোখের পাতায় লাগানোর পর অবশ্যই একটি পাউডার দিয়ে সেট করে নেবেন।

আই মেকাপেও যেন স্নিগ্ধ ভাব ফুটে ওঠে, সেটা হিসেব করেই আইশ্যাডো লাগাবেন। চড়া রঙ এর কালারগুলো ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। কোরাল, পিচ, অরেঞ্জ, ইয়োলো, গোল্ডেন,কপার,  লাইট ব্রাউন, লাইট পিংক, লাইট পার্পল, প্যারট গ্রিন কালারগুলো খুব ভালো মানিয়ে যাবে পহেলা ফাল্গুনে। আই মেকাপে আইশ্যাডো হিসেবে এই কালারগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

পহেলা ফাল্গুনে অবশ্যই টানা করে আইলাইনার লাগাবেন। আপনি চাইলে ব্ল্যাক বা ভিন্ন কালারের কাজল এবং লাইনার ও ব্যবহার করতে পারেন। এটা আই মেকাপে নতুন মাত্রা নিয়ে আসবে।

দিনের বেলা বাইরে বের হলে ফলস আইল্যাশ না পরাই ভালো। এতে দেখতে আন-ন্যাচারাল লাগতে পারে। এর বদলে আইল্যাশগুলো আইল্যাশ কার্লার দিয়ে কার্ল করে নিয়ে, কয়েক কোট মাশকারা লাগিয়ে নিবেন।

(৩) লিপস্টিক

পহেলা ফাল্গুনে লিপস্টিক হিসেবে হালকা রঙগুলোই আমার কাছে পারফেক্ট মনে হয়। লাইট পিংক, নুড ব্রাউন/পিংক, মওভি, টেরাকোট্টা, অরেঞ্জ, পিচ, কোরাল ইত্যাদি কালারগুলো বেশ ভালো লাগবে দেখতে।

আপনি লাইট কালার ব্যবহার না করতে চাইলে রেড লিপস্টিক আপনার জন্যে ভালো অপশন। তবে চড়া কালারগুলো ব্যবহার না করাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

যেহেতু সারাদিন বাইরে থাকবেন, সেহেতু বারবার তো আর লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করা সম্ভব না। তাই বেছে নিন, ম্যাট লিকুইড লিপস্টিকগুলো। এগুলো নরমাল লিপস্টিক এর চাইতে বেশি লং লাস্টিং হয়।

এই তো জেনে নিলেন, পহেলা ফাল্গুলের মেকাপের টুকিটাকি। আশা করছি, এবার আপনার ফাল্গুনের মেকাপ নিয়ে কনফিউশন অনেকটাই দূর হবে।

মডেল – নাজনিন হোসেন ঊর্মি

ছবি – সাজগোজ ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস ফটো কন্টেস্ট ২০১৬

লিখেছেন – জান্নাতুল মৌ