চোখের যত্নে আই ক্রিম - Shajgoj

চোখের যত্নে আই ক্রিম

applying-eye-cream

চোখের কোণে কালি পড়েনি এমন মানুষ আজকাল খুব কমই দেখা যায়। যান্ত্রিক জীবনের সাথে পাল্লা দিতে দিতে এই ক্লান্ত শ্রান্ত চোখ জোড়ার চারপাশ নির্জীব হয়ে যায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই কালো হয়ে ওঠে চোখের নীচের ত্বক। তখন কোন ক্রিম ব্যবহার করবেন কোথা থেকে কিনবেন কিছুই বুঝে উঠতে পারেন না। তাই আজ আমি ডার্ক সার্কেল রিমুভ করার জন্য কয়েকটি আই ক্রিমের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব। এর মধ্যে কিছু আছে যেগুলো আমি ব্যক্তিগত ভাবে ব্যবহার করে বেশ উপকার পেয়েছি। তবে বলে রাখা ভালো আমি যে প্রোডাক্ট দ্বারা উপকার পেয়েছি সেটা দিয়ে যে আপনিও উপকার পাবেন এমন কোন কথা নেই। তবে হ্যাঁ যেহেতু চোখের ব্যাপার তাই চেষ্টা করবেন সব সময় একটু ভালো মানের ক্রিম কিনতে। কারণ আমরা সবাই জানি চোখের চারপাশের ত্বক অনেক নাজুক হয় তাই এর সাথে কোন কম্প্রমাইজ করা চলবে না। এবার চলুন কয়েক কোম্পানির আই ক্রিমের সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেই।

[picture]

Clinique Al about Eyes Rich:

আমি যে ক্রিম ব্যবহার করে উপকার পেয়েছি সেটা দিয়েই শুরু করছি। এ ক্রিমটি টানা ৩ মাস রাতে ঘুমানোর আগে চোখের নীচে লাগিয়ে নিতাম। এর ক্রিমি texture আমার চোখে দিত তুলতুলে নরম অনুভূতি। ৩ মাস পরের ফলাফল দেখে নিজেই অনেকটা অবাক হয়েছিলাম। Al about Eyes Rich এর hydration scale অনেক high, তাই কারো যদি চোখের নীচের ত্বক শুষ্ক হয়ে যায় সেটিও সেরে যাবে সহজে। দামটাও হাতের নাগালের মধ্যে। আমি Clinique এর দোকান থেকেই কিনেছিলাম ৳২৪.৯৫ এ। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২০০০ টাকা। কিন্তু আপনাদের যদি সেভাবে কালেক্ট করতে সমস্যা হয় তবে অনলাইন অর্ডার করতে পারেন।

Revitol Eye Cream:

Revitol ব্র্যান্ড স্কিন প্রোডাক্ট গুলোর জন্য অনেক বেশি জনপ্রিয়। বর্তমানে এ ক্রিমটি ডার্ক সার্কেল দূরীকরণ সকল ক্রিমের মধ্যে শীর্ষ তালিকার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। চোখের কোণের কালি দূরীকরণের সাথে সাথে চোখের ফোলা ভাব কমাতেও সহায়ক এটি। আপনি amazon.com অথবা ebay.com এর মাধ্যমে ৬৯.৯৫ ডলারে মানে ৫৬০০ টাকায় পেতে পারেন এই সাড়া জাগানো ক্রিমটি ।

Vivite Revitalizing Eye Cream:

এই ক্রিমটির সবচেয়ে উপকারী দিক হলো এর মধ্যে ক্যাফেইন বিদ্যমান। যা চোখের কালো দাগ তো দূর করার পাশাপাশি চোখের চারপাশে থাকা রিঙ্কেলও গায়েব করে দেয়। অনলাইন অর্ডারের মাধ্যমে ৩৩.০০ ডলারে (২৬৪০ টাকা) পেতে পারেন এই ক্রিমটি।

Neutragena Healthy Skin Eye Cream:

ক্লিনিক্যালি প্রমাণিত হয়েছে যে Healthy Skin Eye Cream চোখের নীচের কালি দূর করার জন্য অনেক বেশি উপকারী। কালো দাগ দূর করার সাথে সাথে চোখের চারপাশের ত্বকের-ও যত্ন নেয় ক্রিমটি। আলমাসে এর দাম পড়বে ১০০০-১২০০ টাকার মধ্যে।

CytoCell’ Dark Circle Corrective Eye Cream:

ব্যয়বহুল ডার্ক সার্কেল রিমুভার এর মধ্যে এই ক্রিম একটি। অল্প কয়েক দিনের মধ্যে চোখের নীচের কালো দাগ দূর করার ক্ষেত্রে এর কোন জুড়ি নেই। রিসার্চে দেখা গিয়েছে মাত্র ৪ সপ্তাহের ভেতর নাটকীয় ভাবে চোখের কালো দাগ দেখা না যাওয়ার বরাবর হয়ে যায়। যদি খুব জলদি আপনার বিয়ের পিঁড়িতে বসার সম্ভাবনা থাকে আর চোখের নীচের কালো দাগ নিয়ে আপনি বিব্রত অবস্থায় না পড়তে চান তাহলে এই ক্রিম কিনতে পারেন। sephora.com থেকে এই ক্রিম অর্ডার দিতে আপনার গুনতে হবে ৭৫ ডলার, যা বাংলাদেশি টাকায় কনভার্ট করলে হয় প্রায় ৬০০০ টাকা।

Clinique Even Better Eyes Dark Circle Corrector:

এ আই ক্রিমটি আমার মা ব্যবহার করে অনেক উপকার পেয়েছেন। দেখতে অনেকটা ফাউনডেশনের মত। ক্রিমটি অনেক হালকা ওজনের তাই চোখের চারপাশে লাগিয়ে ঘুমালে আপনার কোন ধরনের অস্বস্তি অনুভব হবে না। এতে আছে ক্যাফেইন যা চোখের ফোলা ভাব কমানোর জন্য খুব কার্যকরী আর আছে গ্রিন টি এক্সট্র্যাক্ট। এটি পাবেন ক্লিনিকের অফিসিয়াল ওয়েব সাইটে অথবা বেল্ক বা মেসির ওয়েব সাইটে। ক্রিমটির দাম পড়বে ৩৯.৫০ ডলার বা প্রায় ৩২০০ টাকা। বাংলাদেশের আলমাসেও এই প্রোডাক্টটি পাওয়া যাবে। তবে সেক্ষেত্রে দামটা আরেকটু বেশি পড়বে।

Olay Total Effects Eye Transforming Cream:

কিছু দিন আমি এই ক্রিমটি ব্যবহার করেছিলাম কিন্তু তেমন কোন উপকার পাইনি অথচ আমারই পরিচিত অনেকের ডার্ক সার্কেল লুকিয়ে দিয়েছে এই আই ক্রিমটি। এ ক্রিম চোখের চারপাশের ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে। এ ক্রিমে আছে শশা আর এলোভেরা এক্সট্র্যাক্ট। ক্রিমটির texture কিছুটা কন্সিলারের মত। ক্রিমটি প্রিয় বা আলমাসে সহজে পেয়ে যাবেন। দাম হবে ১২০০-১৫০০ টাকার মধ্যে।

এ আই ক্রিমগুলো সব ধরনের ত্বকের অধিকারীরা অনায়াসে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে ১৫ বছর বয়স হলে ব্যবহার করা উচিত। ভাবছেন এতো কম বয়সে ব্যবহার করা কি ঠিক হবে? ভয়ের কোনও কারণ নেই। চোখের জন্য বানানো হয় বলে এই প্রোডাক্টগুলো অনেক সাবধানতার সাথে বানানো হয়। সব শেষে ছোট একটি টিপস দিতে চাইব। চোখের চারপাশে আই ক্রিম লাগানোর আগে মুখ ভালো করে পরিষ্কার করে নিবেন। এতে যে ক্রিম দেয়া হোক না কেন সেটি ত্বক ভালো ভাবে শোষণ করে আর তার কার্যকারিতা অনেক খানি বেড়ে যায়।

লিখেছেনঃ রোজেন

ছবিঃ শিনোওস.কম

3 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...