শুষ্ক ত্বকের যত্নে কোন ময়েশ্চারাইজারটি আপনার জন্য বেস্ট চয়েস হবে?

শুষ্ক ত্বকের যত্নে কোন ময়েশ্চারাইজারটি আপনার জন্য বেস্ট চয়েস হবে?

3 (61)

ত্বক শুষ্ক হয়ে যাওয়া, ময়েশ্চার কমে গিয়ে স্কিন খসখসে লাগা, চামড়া সাদা সাদা হয়ে উঠে আসা- এই ধরনের নানান সমস্যা হয়ে থাকে ড্রাই স্কিনের। ড্রাই থেকে অতিরিক্ত ড্রাই স্কিন যাদের, শীতকাল আসলে তাদের তো দুশ্চিন্তা আকাশ ছুঁই ছুঁই করে! শীতে সবারই ময়েশ্চারাইজারের প্রয়োজন আর যাদের এমনিতেই শুষ্ক ত্বক তাদের জন্য শীতে প্রয়োজন এক্সট্রা কেয়ার। শুষ্ক ত্বকের যত্নে সঠিক ময়েশ্চারাইজার সিলেকশন নিয়ে আমরা কনফিউশনে থাকি। শুষ্ক ত্বকের যত্নে কোন ময়েশ্চারাইজারটি আপনার জন্য বেস্ট চয়েস হবে, সেটাই জানতে পারবেন আজকের আর্টিকেলে।

শুষ্ক ত্বকের যত্নে কার্যকরী ৪টি ময়েশ্চারাইজার

মার্কেটে তো কত ধরনের ক্রিম, ময়েশ্চারাইজার পাওয়া যায়। কিন্তু কোনটা ভালো হবে, কোনটাতে কোনো হার্মফুল উপাদান নেই, কোনটা স্কিনকে বেশিক্ষণ ধরে ময়েশ্চারাইজড রাখবে, এই ধরনের অনেক প্রশ্ন আমাদের মাথায় ঘুরপাক খায়, তাই না? এই কনফিউশনগুলো দূর করতে আজকের রিভিউ আর্টিকেলটি কিছুটা হলেও হেল্পফুল হবে। চলুন তাহলে শুরু করা যাক!

Lilac Brightening Moisturiser

অনেক সময় ড্রাই স্কিন থাকা সত্ত্বেও ডীপ ময়েশ্চারাইজেশনের ভারী টেক্সচারের ময়েশ্চারাইজার সবাই ব্যবহার করতে চান না। অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে ডীপ ময়েশ্চারাইজেশনের জন্য যে ময়েশ্চারাইজারগুলো আছে, সেগুলো আপনার জন্য বাজেট ফ্রেন্ডলি হচ্ছে না। রিজনেবল প্রাইসে একটি ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার যারা খুঁজছেন, তাদের জন্য Lilac Brightening Moisturiser একটি পারফেক্ট অপশন। আমার নিজের ভালো লাগার কথা যদি বলি, তাহলে তো রিভিউটা একটু ডিটেইলসে শেয়ার করতে হবে।

১) স্কিন ড্রাই হওয়ার কারণে আমি সবসময়ই থিক টেক্সচারের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করে এসেছি। কিন্তু এই ক্রিমের জেল টাইপ লাইট টেক্সচারটা আমার ত্বকে খুব হালকা মনে হয়েছে।

২) এর সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে হালকা টেক্সচারের হওয়া সত্ত্বেও খুব ভালোভাবেই স্কিনের ময়েশ্চারাইজেশন আর হাইড্রেশন ধরে রাখতে সাহায্য করেছে। এতে থাকা হানি বা মধু স্কিনকে ময়েশ্চারাইজড রাখে দীর্ঘ সময় ধরে।

৩) এতে রয়েছে প্রায় ২৫টির মতো প্রয়োজনীয় ইনগ্রেডিয়েন্টস। যেমন, আলফা আরবুটিন, হানি এক্সট্র্যাক্ট, নিকোটিনামাইড ইত্যাদি।

৪) প্রাকৃতিকভাবেই ত্বকে উজ্জ্বলতা এনে দেয় আর ত্বক সতেজ রাখে। এতে থাকা আলফা আরবুটিন একটি সেইফ ব্রাইটেনিং ইনগ্রেডিয়েন্ট হিসেবে স্কিনে কাজ করে।

৫) শুধুমাত্র ড্রাই স্কিন নয়, হালকা টেক্সচারের হওয়ায় অয়েলি টু কম্বিনেশন স্কিন, এমন কী সেনসিটিভ স্কিনের জন্যেও উপযোগী।

৬) যাদের স্কিনে পিগমেন্টেশন, সানবার্ন, মেছতা বা অন্য দাগ আছে; সেগুলো দূর করতে সাহায্য করে।

৭) আনইভেন স্কিনটোনের সমস্যা থাকলে সেটা ঠিক করতেও কার্যকরী।

Jergens Softening Musk Moisturizer

ড্রাই স্কিনে ময়েশ্চারাইজেশনের সাথে সাথে যারা সফট, স্মুথ স্কিন পেতে চান আর সুন্দর ত্বকের সাথে সুন্দর সুগন্ধও যারা খুঁজছেন, তাদের জন্য খুব ভালো একটি অপশন হল Jergens Softening Musk Moisturizer। কী কী বেনিফিট দিবে এই ময়েশ্চারাইজারটি, এক নজরে সেগুলো দেখে নিন।

১) ডীপ ময়েশ্চারাইজেশন করে ত্বককে করবে হাইড্রেটেড আর স্মুথ।

২) এতে আছে ভিটামিন ই আর ইল্যুমিনেটিং হাইড্রালুসেনস, যা ড্রাই স্কিনকে করবে কোমল আর ভেতর থেকে উজ্জ্বল।

৩) এতে আছে মাস্ক এসেন্স যা হালকা সুগন্ধ তৈরি করে এবং অনেকক্ষণ পর্যন্ত স্থায়ী হয়।

৪) আরেকটি সুখবর হচ্ছে নরমাল টু ড্রাই স্কিন, এই দুই ধরনের স্কিনের জন্যেই এটি উপযোগী।

Simple Kind to Skin Replenishing Rich Moisturizer

যাদের ড্রাই অথবা সেনসিটিভ স্কিন, তাদের জন্য রাইট চয়েস হচ্ছে এমন একটি ময়েশ্চারাইজার যাতে আছে নারিশিং ইনগ্রেডিয়েন্টস। আপনার স্কিন যদি ড্রাইএবং সেনসিটিভ হয়ে থাকে, তাহলে আপনার জন্য পারফেক্ট ময়েশ্চারাইজারটি হল Simple Kind to Skin Replenishing Rich Moisturizer। এক্সট্রিম ড্রাই স্কিনের ক্ষেত্রেও দারুণ কাজ করে এটি। চলুন জেনে নেই এই ময়েশ্চারাইজারের গুণাগুণগুলো।

১) বিভিন্ন রকমের ভিটামিন যেমন ভিটামিন বি-৫ সহ অনেক উপকারী উপাদান সমৃদ্ধ রিচ ফর্মুলায় তৈরি হওয়ায় এই ময়েশ্চারাইজারটি স্কিনকে ভেতর থেকে কোমল রাখে আর স্কিনের ময়েশ্চার পুনরায় ফিরিয়ে এনে স্কিনকে স্মুথ করে তোলে।

২) এর ন্যাচারাল সেইফ ফর্মুলা সেনসিটিভ স্কিনেও স্যুট করে, তাই নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারবেন।

৩) যাদের স্কিন অতিরিক্ত ড্রাই হওয়ার কারণে রাফ হয়ে যায়, সেক্ষেত্রে স্কিন রিপেয়ারের জন্য খুব ভালো একটি অপশন এটি।

৪) এটি নন-কমেডোজেনিক, তাই ত্বকের পোরসকে ক্লগড করে দেয় না।

৫) এটি হাইপোঅ্যালার্জেনিক, তাই সাধারণত স্কিনে ইরিটেশন বা অ্যালার্জিক রিয়েকশনের সম্ভাবনা থাকে না।

৬) এতে আর্টিফিশিয়াল কালার, পারফিউম এবং কোনো হার্শ ক্যামিকেল নেই।

CeraVe Moisturizing Cream for Normal To Dry Skin

অতিরিক্ত ড্রাইনেস বা ত্বক সেনসিটিভ হয়ে যাবার পেছনে একটি উল্লেখযোগ্য কারণ হচ্ছে স্কিনের ব্যারিয়ার ড্যামেজ হয়ে যাওয়া। আর এই ড্যামেজড স্কিন ব্যারিয়ার ত্বকের ইচিনেসের জন্য দায়ী। আপনার স্কিনকে রিপেয়ার করে ময়েশ্চার ফিরিয়ে আনতে আশীর্বাদের মত কাজ করবে CeraVe Moisturizing Cream for Normal To Dry Skin। চলুন ভালোভাবে জেনে নেই এই ময়েশ্চারাইজারের আরও কিছু গুণাগুণ।

১) ডীপ ময়েশ্চারাইজেশনের মাধ্যমে শুধু ড্রাই না, অতিরিক্ত ড্রাই থেকে সেনসিটিভ স্কিনের ড্যামেজড ব্যারিয়ার রিস্টোর করে ফিরিয়ে আনে সফট ও স্মুথ স্কিন।

২) এতে থাকা হায়ালুরোনিক এসিড আর সিরামাইডস স্কিনের ময়েশ্চার লক করে ইচিং, ড্রাইনেস সহ স্কিনের নানান সমস্যা কমিয়ে আনে।

৩) এই ময়েশ্চারাইজারটি ফেইস এবং বডির স্কিনের জন্যে উপযোগী। ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত ত্বকের ময়েশ্চার ধরে রাখে।

৪) এর ফর্মুলা রিচ হলেও খুব দ্রুত ত্বক তা শোষণ করে নিতে পারে আর নন-গ্রিসি হওয়ায় কোনো ডিসকমফোর্ট ফিল হয় না।

৫) এটিও নন-কমেডোজেনিক আর এতে আলাদা সুগন্ধ বা পারফিউম যোগ করা হয় নি।

শেষ কথা

এমনিতেই ড্রাই স্কিনে নানান সমস্যা দেখা দেয়, তার উপর শীত আসলে তো কথাই নেই! ড্রাই থেকে এক্সট্রিম ড্রাই স্কিন হলে সঠিক ময়েশ্চারাইজার সিলেক্ট করে নিলেই আপনি হয়ে যাবেন চিন্তামুক্ত। আশা করি বুঝতে পেরেছেন, শুষ্ক ত্বকের যত্নে কোন ময়েশ্চারাইজারটি আপনার জন্য বেস্ট চয়েস হবে। আমার পারসোনাল এক্সপেরিয়েন্স থেকে ৪টি প্রোডাক্টের রিভিউ শেয়ার করলাম আজকে। এছাড়াও আরও অনেক ময়েশ্চারাইজার আছে, যেগুলো শুষ্ক ত্বকের জন্য বেশ কার্যকরী।

স্কিন কেয়ারে নতুন কোনো প্রোডাক্ট অ্যাড করলে আগে প্যাচ টেস্ট করে নিতে ভুলবেন না! সব প্রোডাক্ট সবাইকে স্যুট নাও করতে পারে। স্কিন কেয়ারের জন্য অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে চাইলে আপনারা সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ ভিজিট করতে পারেন, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত সম্ভারে অবস্থিত। আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন, নিজের যত্নেও মনোযোগী হবেন।

ছবি- সাজগোজ

9 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...