ইদের পর অফিস | যত্ন ও সাজ কেমন হওয়া চাই? - Shajgoj



ইদের পর অফিস | যত্ন ও সাজ কেমন হওয়া চাই?


অগাস্ট ২৮, ২০১৮



ইদের পর একদম হুট করেই আবার ঝাঁপ দিতে হবে প্রতিদিনের ব্যস্ততায়। টানা প্রতিদিন মেকআপ বসানোর কারণে চেহারার উপর চলেছে অত্যাচার। তার উপর নানা ব্যস্ততায় রাতে ঘুমোতে যেতেও দেরি হবার ফলে চোখের নিচেও কিছুটা কালি পড়ে গিয়েছে। এমন যুদ্ধ-বিধস্ত হয়ে কাজে ফিরে গেলে চেহারার মত মনটাও মলিন হয়ে যাবে। তাই আসুন জেনে নেই মেকআপ দিয়ে কিভাবে ছুটির পর চাঙ্গা হয়ে অফিসে ফিরে যাবেন।

 

আগের রাতের যত্ন

ইদের কয়দিন ভারী মেকআপ-এর কেমিক্যাল-এর নিচে আপনার ত্বক হয়ত উজ্জ্বলতা হারিয়ে ফেলেছে। সেজন্য তার কিছু বাড়তি আদর যত্ন প্রয়োজন। এর পাশাপাশি আপনারও প্রয়োজন কিছুটা রিল্যাক্সড অনুভব করা। সেজন্য রাতে কিছুটা সময় নিজেকে আর নিজের ত্বককে দিন।

ক্লেঞ্জিং: কোন ফোমিং ক্লেঞ্জার বা ক্ষারমুক্ত ফেসওয়াশ দিয়ে ভালোমত ত্বক পরিষ্কার করে নিন। চেহারার যেসব জায়গাতে বেশি তেল জমে, সেখানে দ্বিতীয়বারের মত ক্লেঞ্জার দিয়ে ধুয়ে নিন। চেহারায় কোন মেকআপ বসে থাকলে সেটা ঘষেঘষে পরিষ্কার করে ফেলুন।

স্ক্রাবিং: সুন্দর এবং উজ্জ্বল ত্বকের জন্য ত্বকের মরা চামড়া এবং ধুলাবালি বের করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঠিকমত স্ক্রাবিং, এক্সফোলিয়েট না করলে ত্বক অনুজ্জ্বল দেখায় এবং ব্রণ হতে পারে। তাই কোন ভাল মানের স্ক্রাবার দিয়ে ত্বক এক্সফোলিয়েট করা উচিত। যদি হাতের কাছে কোন স্ক্রাবার না থাকে, তাহলে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়েও স্ক্রাবার করা সম্ভব।

আপনার বাসায় যদি লেবু্র রস এবং মধু থাকে, সাথে চিনি মিশিয়ে বাসাতেই তৈরি করে নিতে পারেন চমৎকার একটি স্ক্রাবার। তিনটি উপাদান একসাথে মিশিয়ে নিয়ে পাঁচ থেকে দশমিনিট আপনার ত্বকে ঘষুন। এতে সব ডেড সেল বেরিয়ে আসবে, ত্বক হবে উজ্জ্বল।

টোনিং: আপনার ত্বকের জন্য টোনিং এর কোন বিকল্প নেই। আজকার বাজারে উন্নত মানের টোনার পাওয়া যায়। আপনি সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। যদি তা না পারেন, তাহলে নিজেই তৈরি করে নিতে পারেন প্রাকৃতিক টোনার।

একটি বাটিতে ৭-৮ টেবিল চামচ পানিতে ৩-৪ ফোটা অ্যাাপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন। একটি পরিষ্কার কটন বল দিয়ে আপনার মুখে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

শিট মাস্ক: ভালমত মুখ মুছে পছন্দমত একটা শিট মাস্ক লাগিয়ে চোখ বন্ধ করে রিল্যাক্স করুন। পছন্দের কোন গান শুনতে পারেন কিংবা অপেক্ষা করার সময়টুকু কোন ম্যাগাজিন পড়তে পারেন।

ময়েশ্চারাইজিং: প্রতি রাতেই আপনার ত্বকের জন্য প্রয়োজন ময়েশ্চারাইজিং। তা না হলে আপনার মুখে সহজেই বয়সের ছাপ বোঝা যাবে, ত্বক হয়ে যাবে প্রাণহীন এবং শুষ্ক।

একটা ভাল মানের ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম মেখে ঘুমুতে যান। আপনার স্কিন টাইপ-এর সাথে মিল রেখে ক্রিমটি কিনতে হবে।

অফিসের জন্য হালকা মেকআপ

১) সকালে উঠে মুখ ধুয়ে সেরে নিন আপনার বেইজ মেকআপ। রোদের হাত থেকে ত্বক বাঁচাতে, বলিরেখা প্রতিরোধ করতে সানস্ক্রিন-এর কোনই তুলনা নেই। এসপিএফ ৫০+ একটি সান্সক্রিন বেছে নিন এবং মেকআপ রুটিন-এ সবার আগে মেখে নিন সান্সক্রিন।

২) এবার মেখে নিন পছন্দের বিবি অথবা সিসি ক্রিম। ঈদের কয়দিন চেহারায় এত ভারী ফাউন্ডেশান লাগিয়েছেন, তাই এবার ত্বক কিছুটা রেহাই পাক।

৩) আপনার স্কিনটোন-এর চেয়ে দুই শেড হালকা একটা কন্সিলার দিয়ে চোখের নিচের কালি ঢেকে ফেলুন। একটা ভেজা বিউটি স্পঞ্জ দিয়ে বিবি/ সিসি ক্রিম এবং কন্সিলার চেহারায় মিশিয়ে নিন।

৪) যদি চেহারা কন্ট্যুর, হাইলাইট করতে আলসেমি লাগে, তাহলে হালকা ব্লাশ মেখে নিন। এতে চেহারায় রং ফিরে আসবে।

৫) চোখে ভারী শ্যাডো না দিয়ে হালকা রং দিয়ে ক্রিজ কেটে নিন। আইলাইনার দেওয়ার সময় না পেলে ঘন করে মাসকারা লাগিয়ে নিন।

৬) সবশেষে আপনার মুড-এর উপর নির্ভর করে লিপস্টিক লাগিয়ে নিন। সাধারণ মেকআপ লুক নিতে চাইলে হালকা গোলাপি বা কমলা রঙের লিপস্টিক লাগিয়ে নিন।

 

তো শুরু করুন অফিস আবার ফ্রেশ-ভাবে। জীবন চলুক আবার স্বাভাবিক নিয়মে সুস্থতার সাথে।

 

লিখেছেন- সুহী আহমেদ

ছবি- ইমেজেসবাজার.কম