পারফেক্ট মেকআপ লুকের জন্য ৬টি মাস্ট ট্রাই কনসিলার হ্যাকস

পারফেক্ট মেকআপ লুকের জন্য ৬টি মাস্ট ট্রাই কনসিলার হ্যাকস

5

মেকআপ ব্যাগে ফাউন্ডেশন আর ফেইস পাউডারের সাথে আরেকটি জিনিস না রাখলেই নয়, সেটি হলো কনসিলার! একনে স্পট হাইড করা, ব্লেমিশ, ডার্ক সার্কেল, আনইভেন স্কিনটোন ফিক্স করা সহ আরও কত কাজ যে করে এই কনসিলার। আপনার অসম্পূর্ণ মেকআপ লুককে পারফেক্ট ফিনিশিং দিতে ছোট ছোট কিছু ট্রিকস ম্যাজিকের মতো কাজ করবে। তো আজকে জেনে নিন সিম্পল কিংবা হেভি মেকওভারে কনসিলারের দারুণ কিছু হ্যাকস যেগুলো আপনাকে দিবে পারফেক্ট মেকআপ লুক।

৬টি মাস্ট ট্রাই কনসিলার হ্যাকস

লাইফকে ইজি করতে কিছু বিউটি হ্যাকস দারুণ কাজ করে। আমরা নরমালি বেইজ মেকআপের সময় কনসিলার ইউজ করি, কিন্তু এটি দিয়ে বিভিন্ন ধরনের প্রবলেম কিন্তু ইজিলি ফিক্স করা যায়। অনেকেই হয়তো জানেন না কনসিলারের এই মাল্টিপল ইউজেস সম্পর্কে। চলুন তাহলে জেনে নেই এখনই।

পারফেক্ট মেকআপ লুকের জন্য কনসিলার হ্যাকস

১) একনে ও দাগছোপ হাইড করতে কালার কারেক্টরের কুইক ফিক্স সল্যুশন

এখন মার্কেটে সবুজ, হলুদ, কমলা সহ বিভিন্ন কালারের কনসিলার পাওয়া যায়। আপনার স্কিনটোন ও কনসার্ন বুঝে কালার কারেক্টর অ্যাপ্লাই করলে পেয়ে যাবেন পারফেক্ট মেকআপ লুক। যেমন একনে, একনে স্কারস, স্কিন ব্লেমিশ এগুলো হাইড করার জন্য ইউজ করতে হবে গ্রিন কালারের কারেক্টর। যাদের ডার্ক সার্কেল আছে বা মুখে কালো কালো ছোপ আছে, তাদের জন্য অরেঞ্জ কালারের কারেক্টর খুব ভালো কাজ করে। আন্ডার আই ব্যাগস থাকলে ইয়োলো কালারের কনসিলার দিয়ে সেটা খুব সহজে ফিক্স করে নিতে পারবেন।

২) ফাউন্ডেশনের শেইড ম্যাচ না করলে মিক্স করুন কনসিলার

অনেক সময় ফাউন্ডেশনের শেইড স্কিনটোনের সাথে স্যুট করে না বা অ্যাপ্লাই করার কিছুক্ষণ পর মুখ কালো দেখায়। ফাউন্ডেশনের শেইড ম্যাচ না করলে সামান্য কনসিলার মিক্স করে লাগাতে পারেন। যেমন আপনার ফাউন্ডেশন যদি একটু ডার্ক হয়, তাহলে স্কিনটোনের থেকে এক শেইড লাইট কনসিলার দিয়ে সেটা ফিক্স করতে পারেন। আবার যদি আপনার ফাউন্ডেশনের শেইড ন্যাচারাল স্কিনটোনের থেকে লাইট হয়, সেক্ষেত্রে একটু ডার্ক কালারের কনসিলার মিক্স করে নিন। তাহলেই আপনার বেইজ মেকআপ হবে একদম পারফেক্ট!

কনসিলার হ্যাকস

৩) চোখের নিচের পাফিনেস দূর করতে কনসিলার অ্যাপ্লাই করুন ট্রায়াঙ্গেল শেইপে

অনেকে চোখের নিচে ঠিকমতো কনসিলার দেয় না, এতে কিন্তু পাফি আই আরও বেশি হাইলাইট হয়। যদি ট্রায়াঙ্গেল শেইপে অ্যাপ্লাই করেন, তাহলে ফেইস ব্রাইট দেখাবে এবং এটা ডিসকালারেশনও ফিক্স করবে। আন্ডার আই পাফিনেসের ভিজিবিলিটি কমাতে এই স্টেপটি দারুণ হেল্পফুল। খুব বেশি রাব করা যাবে না, এতে আনইভেন দেখাবে। ভেজা স্পঞ্জ দিয়ে ড্যাব ড্যাব করে নিন, এতে লুক হবে পারফেক্ট ও ফ্ললেস।

 

৪) লিপস্টিক মিসটেক ফিক্স করতে কনসিল করুন স্কিনটোনের সাথে ম্যাচ করে

অনেক সময় লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করতে গেলে ছড়িয়ে যায় বা লাইন ঠিক থাকে না। সেক্ষেত্রে কনসিলার হতে পারে আপনার লাইফ সেভার। লিপস্টিক দেওয়ার পর চিকন ব্রাশ দিয়ে লিপ লাইনিং করে নিন। এতে পারফেক্ট ও শার্প লুক পাবেন। স্কিনটোনের সাথে ম্যাচ করে কনসিলার ইউজ করতে হবে এই ক্ষেত্রে, শেইড না মিললে কিন্তু দেখতে বেমানান লাগবে।

৫) আই মেকআপে টুইস্ট আনতে আইলিডে অ্যাপ্লাই করুন কনসিলার

কাটক্রিজ আইলুক ক্রিয়েট করতে বেইজ আই মেকআপ কমপ্লিট করে আইলিডে কনসিলার অ্যাপ্লাই করে নিন। এবার গ্লিটারি বা শিমারি আইশ্যাডো দিয়ে আইলুকে ফিনিশিং দিন। এভাবে খুব সহজে আপনি পেয়ে যাবেন পছন্দের কাটক্রিজ আইলুক। আর নরমালি আই মেকআপের আগে চোখের পাতায় কনসিলার দিয়ে নিলে শ্যাডোর কালার খুব সুন্দরভাবে ফুটে ওঠে। এতে আপনার ফাইনাল আই মেকআপ বেশ ব্রাইট ও গর্জিয়াস দেখাবে।

কনসিলার দিয়ে মেকআপ

৬) ফেইস কনট্যুর করার ইজি ও শর্টকাট উপায় হতে পারে কনসিলারের ব্যবহার

ফেইস কনট্যুরিংয়ের জন্য দুই ধরনের কনসিলার দরকার, একটা ডার্ক শেইডের ও আরেকটা লাইট শেইডের। লাইট শেইডের কনসিলার ইউজ করুন হাইলাইটিং পয়েন্টে, আর ডিপ শেইডের কনসিলার অ্যাপ্লাই করতে হবে চিন এরিয়ায়, গালের দুই দিকে ও কপালের দুই সাইডে। এতে ফেইস শেইপ ডিফাইনড হবে ও শার্প দেখাবে। সেইম প্রসেসে আপনি নোজ কনট্যুরিংও করতে পারেন। দুইটি শেইডের কনসিলার দিয়ে আপনি এই কাজটি খুব সহজেই করতে পারবেন।

তাহলে দেখলেন তো, একটি মেকআপ আইটেম দিয়ে কত ধরনের বেনিফিট আপনি পেতে পারেন। শুধু এই টেকনিকগুলো আপনাকে রপ্ত করতে হবে। তাহলেই ইজিলি ক্রিয়েট করতে পারবেন পারফেক্ট মেকআপ লুক। মেকআপের জন্য প্রয়োজনীয় সব প্রোডাক্টস শপ.সাজগোজ.কম এ পেয়ে যাবেন। যারা নিজেরা দেখে শুনে কিনতে চান, তারা সাজগোজের যেকোনো আউটলেট থেকে কিনে ফেলতে পারেন যেগুলো যমুনা ফিউচার পার্ক ও সীমান্ত সম্ভারে অবস্থিত।

 

ছবি- সাজগোজ

8 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...