নতুন চুল এবং পরিচর্যা - Shajgoj নতুন চুল এবং পরিচর্যা - Shajgoj

নতুন চুল এবং পরিচর্যা

অক্টোবর ২, ২০১৫

চুল পড়া সবার একটি  সাধারণ সমস্যা। আজকাল প্রায় সবার এই সমস্যা দেখা যায়। ছেলে মেয়ে উভয়ের এই সমস্যা রয়েছে। এই সমস্যার সমাধানের জন্য অনেকে ওষুধ খান, অনেক ক্যামিকেল ব্যবহার করে এমন কি সার্জারি পর্যন্ত করে থাকে। তবে অনেকের অনেক রকম সমস্যার জন্য চুল পড়তে পারে। আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্য যারা ঘরে বসে কিছু পরিচর্যার মাধ্যমে নতুন চুল গজাতে চান। চুল তো পড়বেই কিন্তু সমস্যা হচ্ছে  নতুন চুল না গজানো। কারণ এতে মাথা ফাঁকা হয়ে যায়। দেখতে খারাপ লাগে তবে শুধু নতুন চুল গজানোই যথেষ্ট নয় চুলের যত্ন করতে হবে। চলুন দেখে নিই নতুন চুল গজাতে কী কী করবো-

  • স্ক্যাল্প ম্যাসাজঃ

স্ক্যাল্প ম্যাসাজ আপনার চুলের গোড়ার রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে দেয়। এর ফলে আপনার চুল খুব কম পড়ে , নতুন চুল গজাতে সহায়তা করে, এবং চুলের গ্রোথ বাড়িয়ে দেয়। একটু সময় নিন এবং আঙ্গুলের আগা দিয়ে পুরো মাথার স্ক্যাল্প আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করুন। প্রতি দিন আপনার সুবিধা মত ৫ মিনিট সময় নিয়ে ম্যাসাজ করুন।

  • অয়েল ম্যাসাজঃ

সপ্তাহে অন্তত দুই দিন অয়েল ম্যাসাজ করুন। এটি আপনার হেয়ার ফলিকেল গুলো খুলে দিয়ে নতুন চুল গজাতে সহায়তা করে। নারিকেল তেল হালকা গরম করে হাতের তালুতে নিয়ে আঙুলের সাহায্যে ম্যাসাজ করে নিন। একই ভাবে জোজবা অয়েল, আলমন্ড অয়েল, অলিভ অয়েল লাগাতে পারেন।

  • সালফেটযুক্ত এবং অতিরিক্ত ক্যামিকেল যুক্ত শ্যাম্পু বর্জন করুন কারণ এটি আপনার চুলের ন্যাচারাল অয়েল ভেঙ্গে দেয় এবং চুল ভাঙতে সহায়তা করে। চেষ্টা করুন হার্বাল অথবা ন্যাচারাল শ্যাম্পু ব্যবহার করার। এতে আপনার চুল স্বাস্থ্যবান এবং শক্ত হবে।
  • কিছু সময় চুল পড়ার কারণ হতে পারে আপনার যেকোনো প্রকার  ইন্টারনাল সমস্যা। যেমনঃ থাইরয়েড , হরমোনাল  অ্যালোপেসিয়া। এ ধরনের সমস্যা থাকলে চুল গজায় না। তাই আপনাকে প্রথমে চিকিৎসা নিতে হবে।
  • প্রোটিন যুক্ত খাবার খেতে হবে। প্রোটিন আপনার চুলকে হেলদি করে। ডিম, শস্য দানা, সবুজ শাক-সবজিতে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন বিদ্যমান।
  • বায়োটিন,ভিটামিন বি ১২, যখন নতুন চুল গজায় তখন এটি খুব উপকারী। এটি মূলত চুলের গ্রোথ বাড়ায়। তাই আপনি এটি নিতে পারেন।
  • এছাড়া ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ও আয়রন যুক্ত খাবার খেতে হবে।
  • প্রতিদিন চুলে শ্যাম্পু করবেন না। সপ্তাহে ২ দিন চুলে শ্যাম্পু করুন।
  • কোন প্রকার হিট যন্ত্র ব্যবহার করবেন না ।
  • চুলকে  হেলদি রাখতে চুলের আগা কাটুন। তবে খুব বেশি না।
  • এখানে কিছু হেয়ার মাস্ক দেয়া হলো যেগুলো চুল গজাতে সাহায্য করবে।

পেঁয়াজের রসঃ

চুল গজাতে এটি পরীক্ষামূলক ভাবে প্রমানিত। মাঝারি সাইজের ৩ টি পেঁয়াজের রস নিয়ে স্ক্যাল্পে ভালো ভাবে ম্যাসাজ করে ৩০ মিনিট পরে শ্যাম্পু করে নিন। আপনার চুল যদি রুক্ষ হয় তবে এর সাথে মধু যোগ করে নিন। এটি একদিন পর পর ১৫ দিন  ব্যবহার করে নিজেই ফলাফল দেখুন।

লেবুর রসঃ

অর্ধেক পরিমাণ লেবু এবং অর্ধেক পরিমাণ পেঁয়াজের রস মিক্স করে স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করে ৩০ মিনিট পরে শ্যাম্পু করে নিন।

আমলকী, সিকাকাই, রিঠা একসাথে ব্লেন্ড করে শ্যাম্পু হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

মেথিঃ

১কাপ মেথি ও ১কাপ আমলকী পাউডার কুসুম গরম পানিতে সারারাত ভিজিয়ে রেখে পরদিন শ্যাম্পু করার ৩০ মিনিট আগে লাগিয়ে নিন।

লিখেছেনঃ পাপিয়া সুলতানা

ছবিঃ ইয়াংএ্যান্ডমোরইউএসএ.কম