দৈনন্দিন ব্যায়াম সেরে নিন কেবলমাত্র ৫ মিনিটে! দৈনন্দিন ব্যায়াম সেরে নিন কেবলমাত্র ৫ মিনিটে!

দৈনন্দিন ব্যায়াম সেরে নিন কেবলমাত্র ৫ মিনিটে!

লিখেছেন - ফরহাদ রাকিব ডিসেম্বর ২২, ২০১৪

প্রতিদিন একজন নারীকে কতই না কাজ করতে হয়! ঘরের কাজ ছাড়াও যারা বাইরে চাকরি করেন তাদের ব্যস্ততা আরো বেশি। তাই এত ব্যস্ততার মাঝে হয়তো একটু জগিং করা কিংবা জিমনেশিয়ামে গিয়ে ব্যায়াম করা একজন নারীর পক্ষে সাধারণত সম্ভব হয়ে ওঠে না। তবে এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে আপনি মাত্র ৫ মিনিটেই আপনার শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় দৈনন্দিন ব্যায়াম সেরে নিতে পারবেন। মাত্র ৮টি মূল এক্সারসাইজ আপনার শারীরিক ব্যায়ামের ঘাটতি কমিয়ে দেবে। আজকে আমরা আপনাদের জানাবো কেবলমাত্র ৫ মিনিটে কিভাবে করবেন আপনার দৈনন্দিন ব্যায়াম ।

দৈনন্দিন ব্যায়াম যেভাবে করবেন

১০টি ধাপে করে নিন আপনার দৈনন্দিন ব্যায়াম 

১. প্রথমে বিশ সেকেন্ড সময় নিন। সেই বিশ সেকেন্ডে যতগুলো পুশ আপ দিতে পারেন, দিন। তবে একবারে জোর করে বেশি দিতে যাবেন না, এতে আপনার পেশীতে ব্যথা হতে পারে। কিছুদিন পর পর পুশ আপ এর সংখ্যা বাড়ান। পুশ আপ আপনার বুক, কাঁধ, পেটের পেশী ও হাত পায়ের পেশীর সঞ্চালন দ্রুত এবং কার্যক্ষম করবে।

২. দশ সেকেন্ড রেস্ট নিন  এবং অল্প পানি পান করুন। একসাথে বেশি পানি খাবেন না এতে পেট ভরে গেলে এক্সারসাইজ করতে কষ্ট হতে পারে।

৩. এবার পুশ আপ পজিশনে যান, তারপর এক পা সামনে এনে, বুকের ভর পায়ের উপর দিন। অন্য পা সোজা করে টান টান করুন। কয়েক সেকেন্ড এভাবে থেকে পা বদল করুন। এভাবে বিশ সেকেন্ড চালিয়ে যান। বিশ সেকেন্ড মনে রাখতে কষ্ট হলে সাধারণ গতিতে ১ থেকে ২০ পর্যন্ত গুনে ব্যায়াম করুন।

৪. এবার  দুই পায়ের উপর ভর দিয়ে কোমর উঁচু করুন। এভাবে কিছুক্ষণ রাখুন।

৫. আবার হালকা পানি পান করুন।

৬. একটা দড়ি শক্ত কিছুর সাথে বেঁধে নিন। যেমন – ঘরের জানালার গ্রিল। এবার দড়ি টেনে ধরুন, আবার ছেড়ে দিন, আবার টেনে ধরুন। এভাবে নিয়মিত বিরতিতে ২০ সেকেন্ডে কয়েকবার করুন।

৭. হালকা পানি পান করুন ও বিশ্রাম নিন। শ্বাস প্রশ্বাস স্বাভাবিক করুন।

৮. এবার সামনে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে হাঁটু না ভেঙ্গে নিজের পায়ের আঙ্গুল ধরার চেষ্টা করুন। এভাবে ২০ সেকেন্ডে কয়েকবার করুন। তবে প্রথম দিনই জোর করে পায়ের আঙ্গুল ধরতে যাবেন না, এতে কোমরের পেশীতে টান পড়তে পারে।

৯. এবার পায়ের পাতা মাটিতে রেখে দু হাতের তালু দিয়ে মাটি স্পর্শ করুন। আবার উঠে দাঁড়ান, আবার মাটি স্পর্শ করুন।

১০. পানি পান করুন ও বিশ্রাম নিন। তারপর আরেকবার সবগুলো ধাপ প্রথম থেকে করুন।

আপনি কয়েকদিন পর আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী এর মাঝে অন্যান্য এক্সারসাইজ কৌশল যোগ করতে পারেন। মনে রাখবেন, এই পদ্ধতি জিমন্যাশিয়ামের বিকল্প না হলেও একেবারে এক্সারসাইজ না করার চাইতে অনেক ভালো কাজে দেবে।