নানা রঙের হেয়ার অ্যাকসেসরিজ দিয়ে হোক চুলের সাজ!

নানা রঙের হেয়ার অ্যাকসেসরিজ দিয়ে হোক চুলের সাজ!

2 (4)

চুল নিয়ে সমস্যার কি শেষ আছে? আমাদের দেশের আবহাওয়াতে চুলের যত্ন ঠিকমতো নিতে পারাটাও সহজ কথা নয়। অনেকেই আমরা চুল খোলা রাখতে পছন্দ করি। চুল খোলা রেখে গেলে বাইরের ধুলাবালি বা ময়লা চুলে আটকে যায় এবং নিয়মিত যত্ন না নেয়ার অভাবে খুশকি, চুল পরা বা চুল ফ্রিজি হয়ে যাওয়ার মত কমন আর বিরক্তিকর কিছু সমস্যা দেখা দেয়। আজকে আমরা জেনে নিবো কিছু হেয়ার অ্যাকসেসরিজের ব্যবহার নিয়ে, যা দিয়ে আপনি সহজেই নিজেকে যেমন ফ্যাশন বা ট্রেন্ডের সাথে মানিয়ে নিতে পারবেন, তেমনি নিশ্চিত করতে পারবেন চুলের সুরক্ষাও। নানা রঙের হেয়ার অ্যাকসেসরিজ দিয়ে চুলের সাজ নিয়েই আমাদের আজকের আর্টিকেল।

হেয়ার অ্যাকসেসরিজ দিয়ে চুলে মানিয়ে যাবে এমন সহজ কিছু হেয়ার স্টাইল

১) উঁচু করে পনিটেল করে নিন

বিশেষ করে যাদের লম্বা চুল, তাদের জন্যে চুল খুলে বের হওয়া একই সাথে যেমন বিরক্তিকর তেমনি ঝামেলারও। তবে হেয়ার স্টাইল করতে যেয়ে অনেকেই চায়, তাদের লম্বা চুল যেন সবার মন কেড়ে নেয়! চুল যাদের লম্বা বা মিডিয়াম, তারা খুব সহজেই সুন্দর একটি হেয়ার ব্যন্ড দিয়ে উঁচু করে পনিটেল করে নিতে পারেন। এতে চুলে বাইরের ধুলাবালি কম লাগবে, আর চুলের লেন্থও বোঝা যাবে, দেখতেও সুন্দর লাগবে।

২) এলোমেলো খোঁপায় হোক চুলের সাজ

চুল একটু বড় হলে, খোঁপা করাই যেন সবচেয়ে সহজ, তাই না? সময় সংকটে অনেকে আবার যেকোনো জায়গায় বেরোতে গেলে ঝটপট খোঁপা করে নেয়াটাই প্রেফার করে। তবে চুলে সাধাসিধাভাবে খোঁপা না করে একটু এদিক সেদিক করে নিলেই কিন্তু তা দেখতে হয় আরও আকর্ষণীয়, মেসি বান যাকে বলে আর কী! এর জন্যে একটি কাঁকড়া ব্যান্ড বা পাঞ্চ ক্লিপ ব্যবহার করতে পারেন। অথবা পিছনে পনিটেইল করে খোঁপা করে নিয়ে সাইড থেকে কিছু চুল বের করে নিলেও কিন্তু দেখতে লাগবে দারুণ গ্ল্যামারাস। যাদের চুল অনেক বেশি সিল্কি, তারা একটু হেয়ার স্প্রে করে নিতে পারেন।

৩) গ্লিটার পাঞ্চ ক্লিপ দিয়ে বাহারি চুলের সাজ

পাঞ্চ ক্লিপের সাথে কম বেশি আমরা সবাই পরিচিত। মার্কেটে এখন নানা ডিজাইনের আর বিভিন্ন সাইজের পাঞ্চ ক্লিপ পাওয়া যায়। যাদের চুলে খোঁপা করতে অসুবিধা হয়, তারা সহজেই ব্যবহার করতে পারেন এই পাঞ্চ ক্লিপ। চুলগুলোকে পিছন দিকে টেনে হালকা পেঁচিয়ে নিয়ে একটি কালারফুল পাঞ্চ ক্লিপ দিয়ে সিকিউর করে নিতে পারেন। এতে দেখতে আপনাকে যেমন ডিফরেন্ট লাগবে, তেমনি চুল খোলা রাখার ঝামেলা থেকেও মুক্তি পাবেন নিমিষেই।

৪) ব্রেইড হেয়ার স্টাইল হতে পারে ঝটপট সমাধান

অফিস বা ক্যাজ্যুয়াল আউটিং এর জন্যে ব্রেইড হেয়ার স্টাইল হতে পারে ঝটপট দারুণ একটি সমাধান। শুধু সামনের চুল সেকশন করে পিছন দিকে নিয়ে পনিটেল করে বেঁধে নিন। এরপর নিচের পার্টটুকু ঠিক রেখে জাস্ট পনিটেইল করা অংশটিতে বেণী করে নিন এবং হেয়ার ব্যান্ড দিয়ে সুন্দর করে আটকিয়ে নিন। চাইলে বেণীটাকে হালকা একটু টেনে ঢিলা করে নিতে পারেন। এতে খুব সহজেই মানানসই একটি লুক পেয়ে যাবেন। যাদের সামনে চুল ছোট করে কাটা, তারা কপালে চুল এনে রাখতে পারেন, এতে দেখতে আরও আকর্ষণীয় লাগবে।

আমাদের একেক জনের চুল নিয়ে একেক ধরণের কমপ্লেইন! চুল লম্বা হোক বা ছোট, দিন শেষে চুল কতটা স্বাস্থ্যজ্জল সেটাই কিন্তু ভাবনার বিষয়। অনেকের চুল অনেক লম্বা কিন্তু পাতলা! আবার অনেকের চুল অনেক ঘন কিন্তু মলিন বা ফ্যাকাশে! আমরা যারা চুল বড় রাখতে চাই, কিন্তু চুলের যত্ন ঠিকমতো নিতে পারি না, তাদের জন্যে কিন্তু ছোট চুল রাখাই ভালো। তবে একান্তই যারা চুল বড় রাখতে চান, পাশাপাশি চুলের পরিচ্ছন্নতা নিয়েও চিন্তিত, তাদের জন্যে আজকের টপিকটি অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। সবসময় চুল খোলা রাখলে চুলে নানারকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। এভাবে ঝটপট বিভিন্ন স্টাইল করে চুল বেঁধে নিলেই কিন্তু পাবেন এর সমাধান। ভালো থাকবেন।

ছবি- সাজগোজ, pinimg

7 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...