আমার ফেভারিট আইশ্যাডো প্যালেট! – Shajgoj



আমার ফেভারিট আইশ্যাডো প্যালেট!


ডিসেম্বর ১২, ২০১৭



আপনার চেহারায় সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচার কি?

বেশিরভাগ মানুষই উত্তর দিবেন – চোখ।

আর এ চোখজোড়াকে আরো বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে প্রয়োজন একটুখানি আইশ্যাডো, কাজল আর মাস্কারার ছোঁয়া। সাজগোজের বন্ধুরা অনেক সময়ই জানতে চান, যারা নতুন মেকাপ শুরু করেছেন বা যারা মেকাপ সবসময় ব্যবহার করে অভ্যস্ত, অ্যাফোর্ডেবল প্রাইস রেইঞ্জের মধ্যে ভালো কোয়ালিটির কেমন আইশ্যাডো প্যালেট কিনলে ভালো হয়। বেগিনার’র্স প্যালেট যদি বলতে হয়, এটা বেশ ভালো একটা প্যালেট – মরফি থার্টি ফাইভ এফ – ফল ইনটু ফ্রস্ট। মোট ৩৫টি আকর্ষণীয় শেইড আছে এতে, যা দিনে এবং রাতে যেকোন সময়ের সাজে ইউজ করা যায়। এমনকি এই প্যালেটের কিছু শেইড অনায়াসেই আপনার হাইলাইটারের বিকল্পও হতে পারে। কোয়ালিটি, কোয়ান্টিটি এবং অ্যাফোর্ডিবিলিটির দিক থেকে একেবারেই পয়সা উসুল একটা পণ্য এই আইশ্যাডো প্যালেটটি। এটা দিয়ে বেসিক আই মেকাপ, কাট ক্রিজ, স্মোকি আই, গর্জিয়াস পার্টি লুক, ডে টাইম লুক – মোটামুটি সবই করা সম্ভব।

প্যাকেজিং

কালো রঙের প্লাস্টিক প্যাকেজিং এ আসে প্যালেটটি। সাথে কোন মিরর অ্যাটাচড থাকে না। ৫টি রো তে ৭টি করে শেইড, ৩৫টি কালার আছে এই প্যালেটে, যার মধ্যে ৭টি ম্যাট শেইড এবং বাকি ২৮টি মেটালিক ফিনিশের শেইড। ওয়ার্ম টোনড ম্যাট এবং শিমারি আইশ্যাডো এগুলো।

টেক্সচার

মরফি কিন্তু অ্যাফোর্ডেবল প্রাইস রেইঞ্জের মধ্যে এর টেক্সচারের জন্য বেশ সুপরিচিত। শ্যাডোগুলো পিগমেন্টেড, সহজে স্কিনের সাথে ব্লেন্ড হয়। এবং ম্যাক্সিমাম শেইডই ফল আউট করে না, অর্থাৎ গুঁড়োগুঁড়ো হয়ে সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে না। আপনি আঙ্গুল অথবা আইশ্যাডো ব্রাশ, যেকোনটা দিয়েই শেইডগুলো সহজে লাগাতে এবং ব্লেন্ড করতে পারবেন। এবং কালারের ভ্যারিয়েশন ও আমার খুব পছন্দ। দিন এবং রাত, যেকোন সময়ের মেকাপ লুকের জন্যই আপনি এখানে কালারগুলো খুঁজে পাবেন। আর কিছু শেইড হাইলাইটারের বিকল্প হিসেবে অনায়াসে ব্যবহার করা যায়।

কীভাবে ব্যবহার করি

আমি সাধারণত আই প্রাইমার অথবা আমার কনসিলার ভালো করে চোখের উপরে এবং নিচের অংশে লাগিয়ে ভালোভাবে ভেজা বিউটি ব্লেন্ডার দিয়ে ব্লেন্ড করে নেই। তারপর কমপ্যাক্ট বা লুজ পাউডার দিয়ে সেটা সেট করে মিনিটখানেক পর আই মেকাপ শুরু করি। সাধারণত ম্যাট ফিনিশের বেইজ কালারড শেইড দিয়ে স্টার্টিং করি। আইব্রো এর নিচে হাইলাইটার হিসেবে ব্যবহার করার জন্য নিচের এই শেইডটা ব্যবহার করি।

কি কি ভালো লেগেছে

  • অ্যাফোর্ডেবল, মরফির আইশ্যাডো প্যালেটগুলো কোয়ালিটির দিক থেকে যেমন, সে হিসেবে আমি অবশ্যই এটাকে অ্যাফোর্ডেবল বলবো।
  • এক প্যালেটেই ৩৫টা শেইড, আমার জন্য পয়সা উসুল একটা মেকাপ প্রোডাক্ট।
  • বেগিনার্স প্যালেট হিসেবে খুবই ভালো একটা অপশন।
  • বেশ ভালো পিগমেন্টেড।
  • বেশ ক্রিমি টেক্সচার।
  • সহজে ব্লেন্ড হয়ে যায়।
  • খুব বেশি ফল আউট হয় না, স্মাজও হয় না। আমি চোখের নিচের অংশেও অনেকক্ষণ ধরে লাগিয়ে রেখেছি, কিন্তু ছড়িয়ে যায়নি।
  • দীর্ঘসময় পর্যন্ত থাকে, আমি একটানা ১০ ঘণ্টা ছিলাম।

যা যা ভালো লাগেনি

  • অ্যাভেইলেবিলিটি, বাংলাদেশে খুব কম জায়গায় অরিজিনাল মরফির আইশ্যাডো পাওয়া যায়।
  • কেসিং টা ট্রান্সপারেন্ট না, কালো রঙের কাভার দেয়া, তাই প্রতিবারই আমাকে পুরো বক্স খুলে দেখতে হয় শেইডগুলো, বক্স না খুলে দেখার উপায় নেই। আর হ্যা, মিরর নেই। আমি আমার কমপ্যাক্টের আয়না ব্যবহার করে আই মেকাপ করি।

মূল্য এবং রেটিং

বাংলাদেশি টাকায় এর দাম ৩,৪৫০/- টাকা। আমি কিনেছিলাম যমুনা ফিউচার পার্কের শপ.সাজগোজ.কম থেকে। এর রাইফেলস স্কয়ার ব্রাঞ্চেও পাওয়া যায়। তাছারা আরো কিছু ব্র্যান্ডেড মেকাপ স্টোরেও মরফির এই প্যালেট টা মাঝেমাঝে পাওয়া যায়। আমি ব্যক্তিগতভাবে একে রেটিং দিবো ৯/১০।

আমি এই প্যালেট শেষ হলে আবার কিনবো। বিশেষ করে এই বিয়ে-শাদী আর দাওয়াতের সিজনে, যখন অনেক সময় দূরেও দাওয়াত অ্যাটেন্ড করতে যেতে হয়, তখন অনেকগুলো প্যালেট না নিয়ে আমি এই একটা প্যালেট নিয়ে ট্রাভেল করি। এই মুহূর্তে জুভিয়াস সাহারান প্যালেট টা ইউজ করা শুরু করেছি, সামনে ঐটার রিভিউ নিয়ে আসবো। Stay Beautiful, Stay Gorgeous Till Then!

লিখেছেন – অর্থিয়া