মেকাপ, সম্পাদকের পছন্দ, সৌন্দর্য পরামর্শ

কেমন হবে এ বছর পহেলা বৈশাখের মেকআপ?

দেখতে দেখতে আর একটা বাংলা নতুন বছর চলেই এলো। আর এই নতুন বছরকে আমাদের বরণ করে নেওয়ার জন্যে তো চলছে পুরোদমে প্রস্তুতি। শাড়ি, চুড়ি, টিপ ইত্যাদি সব কেনা নিশ্চয়ই শেষ। তাহলে, এবার মেকআপ নিয়ে একটু চিন্তা করা যাক।

যেহেতু প্রচণ্ড গরম থাকবে, তাই সেই বিষয়টা মাথায় রেখে সাজগোজে যাওয়া উচিত।

চলুন জেনে নেই, কেমন হওয়া উচিত পহেলা বৈশাখের মেকআপ এবং কিভাবে তা লং লাস্টিং হবে।

বেইজ মেকআপ

যেহেতু গরম থাকবে, তাই বেইজ মেকআপ নিয়ে আমাদের চিন্তার শেষ নেই। এই গরমে মেকআপ গলে যাওয়ার চান্স তো থাকেই। তাই আমি বলবো, খুব ভারি করে বেইজ মেকআপ না নিতে। বেইজ মেকআপ যতটা সিম্পল রাখা যায়, ততটাই ভালো।

আর মেকআপ সুন্দর স্কিনে বসার জন্যে বেইজ মেকআপ শুরু করার আগে কিন্তু অবশ্যই স্কিন প্রিপেয়ার করে নিবেন।

মেকাপের আগে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে স্ক্রাবিং করে নিবেন এবং একটা ফেসপ্যাক/শীটমাস্ক লাগিয়ে নিবেন। এরপর ময়শ্চারাইজার এবং সানস্ক্রিন ক্রিম লাগিয়ে নিবেন। সানস্ক্রিন ক্রিমটা কিন্তু মাস্ট।

মেকাপ লং লাস্টিং করতে এবং রোদে মুখ কালো হয়ে যাওয়া রোধ করতে একটা ভালো প্রাইমার কিন্তু অবশ্যই লাগবে।

অল্প একটু প্রাইমার মুখে ভাল করে আঙুলের  সাহায্যে লাগিয়ে নিবেন। আপনার স্কিন খুব বেশী অয়েলি হলে, এরপর একটি লুজ পাউডার অল্প একটু ব্রাশে নিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে নিবেন। এরপর বাকি মেকাপে যাবেন। এতে করে একটু পরেই মেকআপ অয়েলি হয়ে যাবে না।

বেইজ মেকআপের জন্যে আমি ভারি কোনোকিছু সাজেস্ট করবো না এটা আগেই বলেছি। তাই বেইজ মেকআপের জন্যে বেছে নিন ভালো কোনো লাইটওয়েট এবং ফুল কভারেজ কন্সিলার, যেটা আপনার স্কিনের সাথে পারফেক্টলি ম্যাচ করে।ফেস এর যেখানে যেখানে ইম্পারফেকশন আছে সেখানে সেখানে কন্সিলারটি লাগিয়ে ব্রাশ/স্পঞ্জের সাহায্যে ব্লেন্ড করে নিবেন। এতে করে স্কিনের ইম্পারফেকশনও ঢাকবে এবং ফাউন্ডেশন এর মত ভারীও লাগবে না মেকআপটা। কারণ, এই গরমে যতো কম প্রোডাক্ট ব্যবহার করা যায় ততই ভালো।

এরপর একটা ফ্রেশ লুক আনতে আগের কন্সিলারের থেকে ২-৩ শেড লাইটার একটা কন্সিলারের সাহায্যে ক্রিম হাইলাইটিং করে নিন। চোখের নিচে, নাকের উপরে, কপালে, থুতনিতে হাইলাইটিং করে নিবেন। তবে এক্ষেত্রে খুবই অল্প পরিমাণে লাগাবেন।

এবার ফাউন্ডেশন সেট করে নিন পাউডারের সাহায্যে। আর যে যে স্থানে কন্সিলার লাগিয়েছেন সেখানে লুজ পাউডার দিয়ে বেকিং করে নিন।

– কনট্যুরিং করে নিন হালকাভাবে। গালে লাগিয়ে নিন ব্লাশ। ব্লাশের ক্ষেত্রে কোরাল, অরেঞ্জ, ব্রাউন ইত্যাদি কালার ভালো লাগবে।

ফেস-এ একটা গ্লোয়িং লুক পেতে পাউডার হাইলাইটিং করে নিন অল্প করে। কারণ, দিনের বেলায় অতো চকচকা মেকআপ ভালো লাগবে না। আবার চাইলে নাও লাগাতে পারেন।

বেইজ মেকাপের শেষে সেটিং স্প্রে লাগাতে কিন্তু একদমই ভুলবেন না।কারণ, এটি আপনার মেকআপ সারাদিন ভালো রাখবে।

আই মেকআপ

এবার আসি আই মেকআপে।

আইব্রো আর্ট করে নিন ন্যাচারালভাবে। যদি দিনের বেলা বের হন তবে খুব বেশী ড্রামাটিক না করাই ভালো।

আই মেকআপের শুরুতে ভালো একটা আই প্রাইমার লাগিয়ে তা পাউডার দিয়ে সেট করে নিবেন। এতে আপনার আই মেকআপ  সারাদিন ভালো থাকবে।

আইশ্যাডোর ক্ষেত্রে বেছে নিন ব্রাউন। এই বছর ব্রাউন ধাঁচের কালার বেশ চলছে। পহেলা বৈশাখের সাজে ভালোও লাগবে বেশ। এছাড়াও পার্ল, গ্রীন, ইয়েলো,অরেঞ্জ, গোল্ডেন, কপার, পিচ, রেড ইত্যাদি কালার। রেড শুনে নাক সিটকাবেন না। বছর দুয়েক আগেও রেড আইশ্যাডো ব্যবহার করতে চাইতো না অনেকেই। কিন্তু এখন রেড কালারটিই ট্রেন্ড-এ চলে এসেছে। আর পহেলা বৈশাখে মানাবেও দারুণ।

চোখে আইলাইনার, কাজল, মাশকারা যাই লাগান না কেন, সব যেন ওয়াটার প্রুফ হয়। আর যেহেতু বৈশাখের সাজ, সেহেতু বাঙালিয়ানা আনতে আইলাইনারটা মোটা এবং টানা করে পড়তে পারেন।

আর এই গরমে ভুলেও ফলস আইল্যাশ এবং গ্লিটারের ধারে কাছেও যাবেন না।

লিপস্টিক 

আই মেকাপ তো গেল। এবার চলে আসি লিপস্টিক-এ। লিপস্টিক-এর কথা আসলে আমি বলবো পহেলা বৈশাখে রেড কালার লিপস্টিক যেমন মানায়, অন্য লিপস্টিক আমার কাছে কেমন যেন মানানসই মনে হয় না। তবে, সবার মত তো আমার মতের সাথে মিলবে না। তাই আপনারা যদি রেড লিপস্টিক ব্যবহার করতে না চান তবে বেছে নিন, মওভ পিংক, ব্রাউন, লাইট ব্রাউন, টেরাকোটা, পিচ, কোরাল ইত্যাদি কালার।

তবে হ্যা, লিপস্টিক টা লিকুইড ফর্মের হলে ভালো হয়। কারণ এগুলো লং টাইম ঠোঁটে স্টে করে।

 

**কিছু টিপস-

১. বাইরে বের হওয়ার আগে ব্যাগে করে একটি ফেস পাউডার নিয়ে নিবেন, যেটাতে আয়না এবং পাফ আছে।

২. এছাড়া ব্যাগে টিস্যু, লিপস্টিক, কাজল, লেন্স পড়লে লেন্স এর বক্স ইত্যাদি নিয়ে নিবেন। আর পানির বোতল, ছাতা ইত্যাদি নিতে যেন আবার ভুলবেন না।

৩. যাদের অয়েলি স্কিন, তাদের জন্যে ইম্পরট্যান্ট একটা জিনিস হল ব্লটিং পেপার।  এই জিনিসও ব্যাগে রাখবেন। কয়েক ঘন্টা পর যদি মনে হয় যে মেকআপ অয়েলি হয়ে গেছে তখন একটা ব্লটিং পেপার নিয়ে ফেস-এ চেপে নিবেন। এতে করে ব্লটিং পেপার এক্সট্রা অয়েলটা শুষে নিবে।

এই তো জেনে নিলেন পহেলা বৈশাখের মেকাপ সম্পর্কে। আশা করছি, একটু হলেও ধারণা পেয়ে গেছেন। আপনার পহেলা বৈশাখ সুন্দর এবং নিরাপদে কাটুক।

 

 

লিখেছেন-জান্নাতুল মৌ

Comments

comments

Recommended