সুস্বাস্থ্য

দারুণ তিনটি ডিটক্স চায়ের রেসিপি

সকাল বেলা এক কাপ গরম ধোয়া ওঠা চা না হলে কি চলে? এই এক কাপ চাই কিন্তু পারে আপনাকে সারাদিন সতেজ রাখতে। সারাদিনের কাজের মাঝে এক কাপ চা খেতে পারলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। এখন পছন্দের এই চা যদি আপনার শরীরের ডিটক্সিফিকেশনের কাজও করে তাহলে কেমন হয়? সতেজ তো আপনাকে রাখবেই, পাশাপাশি শরীরকে রাখবে টক্সিনমুক্ত।

সারাদিন নানারকম জাঙ্ক ফুড, অস্বাস্থ্যকর খাবার, পানি, প্রসেসড ফুড ইত্যাদি আমদের শরীরে যায়।এই টক্সিন উপাদানগুলো শরীর থেকে বের করা মোটেও সহজ কিছু নয়। ডিটক্সই পারে শরীরকে এই টক্সিন মুক্ত করতে। স্বাস্থ্যকর উজ্জ্বল ত্বকের জন্য আমরা কতকিছুই না করি। বাহিরের ত্বক নিয়ে আমরা এতই চিন্তিত থাকি যে ভিতরের যত্নের কথা ভুলেই যাই। কিন্তু শরীরের ভেতরটি পরিষ্কার থাকলে সৌন্দর্য আপনাআপনিই ফুটে উঠে। তাই উজ্জ্বল ত্বক পেতে ও তারুণ্য ধরে রাখতে ডিটক্সের জুড়ি নেই।

ডিটক্স পানির কথা তো অনেক শুনেছি, আজকে আপনাদের জন্য তিনটি ডিটক্স চায়ের রেসিপি নিয়ে এসেছি যার মধ্য থেকে আপনি সহজেই প্রতিদিনের জন্য পছন্দের একটি চা বেছে নিতে পারেন।

(১) গ্রিন সিনেমন ডিটক্স টি

এই চা কে স্লিমিং টি ও বলা হয়ে থাকে। গ্রিন টি তে থাকে প্রচুর পরিমাণে পলিফেনল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যার রয়েছে শক্তিশালী ডিটক্সিফাইং গুণ। অন্য যে কোন চায়ের চেয়ে গ্রিন টিতে সবচেয়ে বেশি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে।

যা যা লাগবে –

  • গ্রিন টি ১ ব্যাগ
  • ১ ইঞ্চি লম্বা দারচিনি বা দারচিনি পাউডার ১/৪ চা চামচ
  • মধু ১ চা চামচ
  • ফুটানো গরম পানি ২ কাপ

যেভাবে তৈরি করবেন –

২কাপ ফুটানো গরম পানিতে ১ ব্যাগ গ্রিন টি মিশিয়ে নিন।এখন মিশ্রণটিতে একটি ১ ইঞ্চি লম্বা দারুচিনি অথবা দারচিনি পাউডার এবং মধু মেশান।কিছুক্ষন পর টি ব্যাগটি বের করে নিন এবং দারচিনি পাউডার পুরোপুরি মিশে যাওয়া পর্যন্ত চামচের সাহায্যে নাড়তে থাকুন। তৈরি হয়ে গেল সুস্বাদু গ্রিন সিনেমন ডিটক্স টি।

(২) জিঞ্জার ডিটক্স টি

জিঞ্জার ডিটক্স টি একটি অন্যতম স্কিন ক্লিয়ারিং টি। আদা আপনার গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও বমির ভাব দূর করবে। যাদের “মোশন সিকনেস” আছে তাদের জন্যও আদা খুব উপকারি। তাছাড়া যেকোন রকম সংক্রমণ রোধ করতেও আদা ও লেবুর রস কার্যকারি ভূমিকা রাখে, তাই এটি আপনার ত্বককে ভিতর থেকে পরিষ্কার করে এবং ব্রণমুক্ত রাখে।

যা যা লাগবে –

  • গরম পানি অথবা গ্রিন টি ১-২ কাপ
  • লেবুর রস – ৩ টেবিলচামচ
  • আদা-১ ইঞ্চি লম্বা করে স্লাইস করা
  • মধু ১/২ টেবিলচামচ

যেভাবে তৈরি করবেন –

এক কাপ গ্রিন টি তৈরি করে তার মধ্যে স্লাইস করা আদা দিন এবং অল্প আঁচে ৫-১০ মিনিট গরম করুন। এর মধ্যে ৩ টেবিলচামচ লেবুর রস ও ১/২ টেবিলচামচ মধু যোগ করুন। আপনার সকালের জিঞ্জার ডিটক্স টি তৈরি হয়ে গেল।আপনার শরীরের ভিতরের বাদবাকি কাজটুকু এই চা নিজেই করবে।

(৩) টারমারিক ডিটক্স টি

আপনি কি জানেন,টারমারিক বা হলুদ হলো প্রাকৃতিক লিভার ক্লিনজিং মশলা? লিভার আমাদের শরীরের সবচেয়ে বেশি ডিটক্সিফাইংয়ের কাজ করে ও বিভিন্ন রকম সংক্রমণ থেকে আমাদেরকে মুক্ত রাখে। এক চিমটি হলুদ লিভারের এই কার্যকারিতাকে অনেকগুণ বৃদ্ধি করে দেয়।

যা যা লাগবে –

  • হলুদ গুঁড়ো  – ১/৪ চা চামচ
  • আদা পাউডার –  ১/৪ চা চামচ
  • গোল মরিচের গুঁড়ো – ১ চিমটি
  • মধু  – ১ টেবিল চামচ
  • পানি  – ২কাপ
  • নারিকেল দুধ  – ১/৪ কাপ

যেভাবে তৈরি করবেন –

আধা মগ ফুটন্ত গরম পানিতে হলুদ গুঁড়ো ও আদা যোগ করে ঢেকে ৫-১০মিনিট গরম করুন। এরপর মিশ্রণটিকে ছেঁকে নিয়ে এতে একে একে গোলমরিচ গুঁড়ো, মধু, নারিকেল দুধ মিশিয়ে নিন। ইচ্ছা হলে নারিকেল দুধ বাদ দিতে পারেন। আপনার টারমারিক ডিটক্স টি তৈরি হয়ে গেল। এই ডিটক্স টি আপনি রাতে ঘুমানোর আগে খেতে পারেন।

সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে হলে যতটুকু পারুন শরীরকে টক্সিনমুক্ত রাখতে চেষ্টা করুন। নিজেকে টক্সিনমুক্ত রাখার ছোট ছোট চেষ্টা ও পরিচর্যা আপনাকে রাখবে দিনভর সতেজ,মনকে করবে প্রফুল্ল।

ছবি – পিন্টারেস্ট ডট কম

লিখেছেন – শাবনাজ বেনজীর

Comments

comments

Recommended