চুলের যত্ন, সৌন্দর্য পরামর্শ

চুলের যত্নে: আয়ুর্বেদের ভীষণ কার্যকরী ৮টি ভেষজ উদ্ভিদ

চুল পড়ে যাচ্ছে!

এ কথাটি মুখ দিয়ে উচ্চারণ করেননি, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর!

এখন, চুল তো পড়ছে ঠিকই, চুল পড়ার সঠিক কারণটা কি আমরা জানি? সবার চুল কিন্তু একই কারণে পড়ে না। যে কারণে দেখা যায় যে, যার চুলে একটা প্রোডাক্ট কাজ করেছে, জরুরী না যে আরেকজনের চুল পড়া ও সেই একই প্রোডাক্টে কমবে। আর এখানেই আমাদের প্রয়োজন আয়ুর্বেদের।

“আয়ু” শব্দের অর্থ “জীবন”, “বেদ” শব্দের অর্থ “জ্ঞান”। আয়ুর্বেদ শব্দের অর্থ হচ্ছে “জীবনজ্ঞান”। প্রায় ৫০০০ বছরের পুরোনো এই আয়ুর্বেদ ভেষজ উদ্ভিদের মাধ্যমে কোন প্রকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই ত্বক আর চুলের বিভিন্ন সমস্যা নির্ণয় করে তার জন্য উপযুক্ত সমাধান বের করে থাকে।

আজকে আমি চুলের স্বাস্থ্য রক্ষায়, চুল পড়া কমাতে, নতুন চুল গজাতে, খুশকিসহ চুলের যাবতীয় সমস্যা দূর করে আপনাকে সুন্দর, স্বাস্থ্যোজ্জ্বল, ঝলমলে চুল পাবার জন্য প্রাচীন আয়ুর্বেদের ৮টি ভীষণ কার্যকরী ভেষজ উদ্ভিদের গুণাগুণ জানানোর চেষ্টা করবো।

  • ভৃঙ্গরাজ (Bhringraj)

ভৃঙ্গরাজকে king of herbs বলা হয়ে থাকে। এটা নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে, চুলের অকালপক্বতা রোধ করে, সেই সাথে এর calming effects যাদের নিদ্রাহীনতা আছে তাদেরকে ঘুমোতে সাহায্য করে।

  • ব্রাহ্মী (Brahmi)

চুলের গোড়াকে মজবুত করে তোলে, খুশকি দূর করে, চুলের উপরে একটি প্রোটেক্টিভ লেয়ার তৈরি করে যার ফলে চুল অনেক বেশি স্বাস্থ্যোজ্জ্বল আর শাইনি দেখায়, নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে ফলে চুল অনেক বেশি ঘন দেখায়।

  • আমলকী (Amla)

আমলকীর ভিটামিন সি এর কথা কে না জানে! হেয়ারফল বন্ধ করে আর খুশকিসহ মাথার স্কাল্পের যাবতীয় সমস্যা দূর করে চুলকে করে তোলে ঘন, কালো আর সুন্দর।

  • অ্যালোভেরা (Aloevera)

অ্যালোভেরা চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। আর এর ন্যাচারাল ময়েশ্চারাইজিং প্রোপার্টি চুলকে সিল্কি করে তোলে। এটা চুলে এক প্রকার প্রোটেক্টিভ লেয়ার তৈরি করে ফলে বাইরের তাপ, ধুলোবালি চুলের তেমন একটা ক্ষতি করতে পারে না।

  • মুকুনুউয়েনা (Mukunuwenna)

মুকুনুউয়েনা এক প্রকার জলজ ভেষজ উদ্ভিদ। এটার ও calming & cooling effect আছে। যাদের মাথাব্যথা, অনিদ্রার সমস্যা আছে তাদের জন্য ভীষণ উপকারী।

  • ভেতিভার (Vetiver)

ভেতিভার একটা ঘাস জাতীয় ভেষজ উদ্ভিদ, যেটা স্ক্যাল্পে কোন প্রকার ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন হতে দেয় না, চুলের জন্য টনিক হিসেবে কাজ করে, মাথাব্যথা আর অনিদ্রার সমস্যা ও দূর করে।

  • অশ্বগন্ধা (Ashwagandha)

অশ্বগন্ধায় থাকা ন্যাচারাল অ্যান্টি অক্সিডেন্টস চুল পড়া রোধ করে, অকালপক্বতা রোধ করে, চুলের সার্বিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে সাহায্য করে।

  • মেথি (Fenugreek Seeds)

মেথিতে আছে প্রোটিন, লেসিথিন, এবং অনেক মিনারেলস যা নতুন চুল গজাতে সাহায্য করতে, চুলকে খুশকিমুক্ত স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করে তুলতে সাহায্য করে।

হার্বাল প্রোডাক্ট ব্যবহারের উপযোগিতা কিন্তু লিখে শেষ করা যাবে না। এসব প্রাকৃতিক ভেষজ উদ্ভিদ আপনার চুলের এবং স্কাল্পের কোন প্রকার ক্ষতি না করেই আপনার চুলের যাবতীয় সমস্যা দূর করতে সক্ষম। চুল পড়া, খুশকি, মাথাব্যথা, অনিদ্রা ইত্যাদি নানান সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম এই ভেষজ উদ্ভিদগুলো। আর যদি চুলের যত্নের জন্য সবচেয়ে ভালো উপাদান তেলের সাথে এসব ভেষজের সংমিশ্রণ ঘটে, তাহলে চুলের জন্য সবচেয়ে ভালো ফলাফল পাওয়া সম্ভব। হার্বাল তেলে থাকা প্রোটিন, ভিটামিন ই, ন্যাচারাল অ্যান্টি অক্সিডেন্টস চুলকে ডিপলি নারিশ করে, চুলের গোড়াকে মজবুত করে, চুল পড়া কমায় এবং চুলকে করে তোলে সিল্কি, শাইনি আর গর্জিয়াস। ক্ষতিকারক বিভিন্ন কেমিক্যালযুক্ত প্রোডাক্ট ব্যবহার করার কারণে চুল যদি আপাতভাবে সুন্দর হয় ও, তবুও লং রানে দেখা যায় যে চুলের গোড়া নরম হয়ে যাওয়া, চুল পড়া, চুল রুক্ষ আর শুষ্ক হয়ে যাওয়া, মাঝখান থেকে ভেঙে পড়া, নিষ্প্রাণ দেখানোসহ আরো অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে।  তাই চুলের যত্নে আমি সবসময় হার্বাল প্রোডাক্টকেই বেছে নেই। সুন্দর এবং স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল আপনার পুরো অ্যাপিয়ারেন্সকেই বদলে দিতে পারে।

So, lets return to nature, because that is the only way you can stay beautiful from inside.

ছবি – পিন্টারেস্ট ডট কম, স্টাইলক্রেজ ডট কম, স্টকফটো ডট কম

লিখেছেন – ফারিন নাওয়াজ

Comments

comments

Recommended