মেকাপ, সম্পাদকের পছন্দ, সৌন্দর্য পরামর্শ

ঈদ স্পেশাল মেকাপ লুক: লং লাস্টিং বেইজ মেকাপ (পর্ব ১)

আর কয়েকদিন পরেই তো আসছে সেই প্রতিক্ষিত ঈদ।  ঈদের তো প্রচুর দাওয়াত থাকবে, তো সেখানে একটু সাজগোজ না করে গেলে চলে? তাছাড়া ঘোরাঘুরি তো থাকছেই। ঈদ ঈদ ব্যাপার তো আছে তাই না? কিন্তু ঈদের সাজ কেমন হওয়া উচিৎ, কীভাবে মেকাপ সুন্দর এবং লং লাস্টিং হবে? কনফিউজড? ভাবলাম আপনাদের সাথে আমার এই ঈদের মেকাপ লুকটা শেয়ার করি। ঈদের ড্রেস এবং আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখেই আমি এই লুকটি করব বলে ভেবে রেখেছি।  আজকে তাই জানাবো, কীভাবে ঈদের দিন/রাতের জন্যে কমপ্লিট একটা লুক করতে পারবেন। প্রথম পর্বে থাকছে লং লাস্টিং একটি বেইজ মেকাপ এবং কন্টুরিং হাইলাইটিং, ব্লাশ।

আচ্ছা। একটা ছোট টিপস আগেই দিয়ে রাখি। যারা যত্ন নতুন মেকাপ করেতে শুরু করেছেন তারা  ঈদের আগেই একবার প্র্যাকটিস করে নিবেন তাহলে ঈদের দিন মেকাপ করার সময় ভুল  হবার সম্ভবনা কমে যাবে।  তো আর দেরী না করে চলুন স্টেপ বাই স্টেপ জেনে নিই,  কীভাবে বেইজ মেকাপ করবেন।

(১) বেইজ মেকাপ সুন্দর হওয়ার জন্যে মেকাপ শুরুর আগে কিছু স্টেপ কিন্তু না মানলেই নয়। সেগুলো হলো- ক্লিঞ্জিং, স্ক্রাবিং, যেকোন ফেইস মাস্ক (সময় না থাকলে ঈদের আগের দিন রাতেও মাস্ক লাগিয়ে নিলেও চলবে।), টোনিং, ময়েশ্চারাইজিং, সানস্ক্রিন। বেইজ মেকাপ শুরুর আগে এগুলো স্টেপ বাই স্টেপ ফলো করতে হবে।

(২) তো নিচের ছবিতে দেখতে পাচ্ছেন, আমার ফেস এ কোনো মেকাপ নেই। আমি উপরের স্টেপগুলো ফলো করে আমার মুখকে মেকাপের জন্য প্রস্তুত করে নিয়েছি।

– এর পরের ধাপ হচ্ছে, একটি প্রাইমার লাগিয়ে নেওয়া। অল্প একটু প্রাইমার নিয়ে আমি আমার টি জোন-কে ফোকাস করে পুরো মুখেই লাগিয়ে নিয়েছি।

(৩) এরপর কিছুক্ষণ ওয়েট করবো প্রাইমার-টা সেট হওয়ার জন্যে।

– এবারে, আমার ফেইস এ যেসকল জায়গাতে স্পট, ডার্ক সার্কেল, পিগমেন্টেশন আছে। সেই জায়গাতে একটা অরেঞ্জ কালারের কারেক্টিং কনসিলার লাগিয়ে নিয়ে আঙুলের সাহায্যে ব্লেন্ড করে নিয়েছি।

(৪) এবার ফাউন্ডেশন এর পালা। আমি একটি ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন নিয়ে প্রথমে আমার পুরো ফেইস এবং গলায় ডট ডট করে লাগিয়ে নিয়েছি।

– এরপর একটা বিউটি স্পঞ্জের সাহায্যে হালকা চেপে চেপে ব্লেন্ড করে নিয়েছি। ফাউন্ডেশন কিন্তু সময় নিয়ে আস্তে আস্তে ব্লেন্ড করতে হবে। এতে ফিনিশিং অনেক ভালো আসবে।

(৫) ফাউন্ডেশন এর পর ফেইস হাইলাইট করতে হবে। এজন্যে আমি আমার স্কিনের থেকে ২ শেড লাইট একটা কনসিলার ব্যবহার করেছি। একটা ব্রাশের সাহায্যে আমার চোখের নিচে, কপালে, নাকের উপর, থুতনি, আইব্রোর উপরের দিকে এবং চিকবোনের অনেকটা নিচের দিকে লাগিয়ে নিয়েছি এবং সেইম বিউটি স্পঞ্জের সাহায্যে ব্লেন্ড করে নিয়েছি। কনসিলার-টা যে এড়িয়াতে লাগানো হয়েছে শুধুমাত্র সেই সকল এড়িয়াতেই ব্লেন্ড করতে হবে। সরে যেন না যায়।

(৬) অনেক সময় কনসিলার চোখের নিচে এবং স্মাইল লাইনে ক্রিজিং করে,  যেটা দেখতে খুব বাজে লাগে। এজন্যে আমি একটি বিউটি স্পঞ্জে অনেকখানি লুজ পাউডার নিয়ে আমার চোখের নিচে, স্মাইল লাইনে  লাগিয়ে নিয়েছি। যেটাকে বেইকিং বলা হয়। এভাবে ৩-৫ মিনিট রেখে একটা বড় ব্রাশের সাহায্যে এক্সেস পাউডার-গুলো ঝেড়ে ফেলে দিয়েছি।

(৭) এবার পুরো মুখের মেকাপ সেট করার জন্যে একটা পাউডার ব্রাশে অল্প একটু ফেইস পাউডার নিয়ে পুরো মুখে এবং গলায় হালকা চেপে লাগিয়ে নিয়েছি।

(৮) এবার পাউডার কন্ট্যুরিং এবং হাইলাইটিং এর পালা। একটি ব্রাশে কন্টুরিং পাউডার নিয়ে আমার চিকবোনের নিচে, হেয়ার লাইনে, থুতনির নিচে, নাকের দুই পাশে লাগিয়ে নিয়েছি এবং ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিয়েছি।

– এরপর একটি হাইলাইটার ব্রাশের সাহায্যে আমার চিকবোন, নাকের উপরে, আইব্রোর উপরের দিকে, থুতনিতে, ঠোঁটের উপরের দিকে পাউডার হাইলাইটার লাগিয়ে নিয়েছি।

(৯) এবার ব্লাশ ব্যবহারের পালা। আমি পাউডার কন্ট্যুরিং এবং হাইলাইটিং করার পরে ব্লাশ ব্যবহার করেছি, এতে ৩ টি প্রোডাক্ট মিলে সুন্দর একটা ব্লেন্ডেড লুক আসে।

– আমি একটা কোরাল কালারের ব্লাশ লাগিয়েছি। প্রথমে সুন্দর করে একটা স্মাইল দিয়ে নেবেন। এতে করে আপনার চিকস বোঝা যাবে। এবার একটি ব্রাশে ব্লাশ নিয়ে গালে লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিবেন। ব্যস!

 

(১০) বেইজ মেকাপের সবশেষে  একটা ভালো সেটিং স্প্রে নিয়ে পুরো মুখে স্প্রে করে  নিন। এতে আপনার মেকাপ সারাদিন লক থাকবে।

এই তো জেনে নিলেন, কীভাবে ঈদের দিনের জন্যে একটি লং লাস্টিং বেইজ মেকাপ ক্রিয়েট করবেন। সবচেয়ে আকর্ষণীয় পার্ট আই মেকাপ থাকছে পরের পর্বে।

ছবি ও লিখেছেন – জান্নাতুল মৌ

Comments

comments

Recommended