অন্যান্য, ঘরকন্না

বাতিল জিনিষ সত্যিই কি ফেলনা?

ফেলে দেয়ার মতো জিনিষপত্র থেকে চমৎকার সব দরকারী সামগ্রী তৈরি করে নেয়া যায়। বানানো যায় নিজের ব্যবহারের কোন অনুষঙ্গ, ঘরে সাজিয়ে রাখার শোপিস বা খুব প্রয়োজনীয় কোন কাজের সামগ্রী। তাতে বেশ অনেকটা সময়ও দিতে হয়। যত্ন পেলে তবেই তো সুন্দর ভাবে তৈরি হবে নতুন জিনিষটা!

এখানে ফেলনা জিনিষপাতির শৈল্পিক নতুন রূপের কথা হবে না। নিখুঁত একটা শোপিস, সাধের কোন অলঙ্কার বানানোর কথা হবে না এবার। বাতিল জিনিষগুলো চট করে ফেলে না দিয়ে সংগ্রহে রেখে দিন, কখনো কাজে লাগবে দরকারে। সামান্য কিছুটা ঠিকঠাক করে নিলেই সেই বাতিল জিনিষপত্র দিব্যি ব্যবহার করা যাবে বিভিন্ন কাজে।

পুরনো কাপড়
এই এক বস্তু পাওয়া যাবে কমবেশি সবার ঘরেই। পুরনো বলতে একেবারেই বাতিলের খাতায় নাম লেখানো কাপড়ের কথা হচ্ছে। অনেকদিন আগেকার কাপড় কিন্তু নষ্ট হয়ে যায়নি, তেমন নয়। যে কারো ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে যাওয়া কাপড়গুলি বস্তাবন্দী করে ফেলে দেয়ার আগে একটু ভাবুন। কয়দিন বাদে ঘর ঝাড়ামোছা করার কাপড়ের খোঁজ পড়লে তখন কাজে লাগতো না এসব? নষ্ট কাপড়ের ভালো যতোটুক অংশই পাবেন, কেটে রেখে দিন। দুই/তিন পরত করে সেলাই দিয়ে নিতে পারেন ব্যবহারে নিজের সুবিধা মতো।
ঘরের কোণে ছোট্ট এক টুকরো ফ্লোরম্যাটও বানিয়ে রেখে দিতে পারেন এমন কাপড় থেকে।

maxresdefault

কাগজ
খবরের কাগজ নিশ্চয় বেচে দেয়াই হয়। বা এমনিই দিয়ে দেন কোথাও। সব খালি করে দিয়ে দেবেন না, কিছু কাগজ সবসময়ই জমিয়ে রাখুন ঘরে। পুরনো খাতাপত্রেরও কিছু কিছু রেখে দিন এমন। ভেজা কাগজে আয়না ভালো পরিষ্কার করা যায়, তখন কাজে লাগবে খবরের কাগজ। হুট করে বাসায় ঠোঙ্গার দরকার পড়লে যেকোন কাগজ ভাজ করে পিন লাগিয়ে নিয়ে কাজ চালাতে পারবেন। তাই একেবারেই ঘর পরিষ্কার না করে এসব জঞ্জাল রেখে দিন অল্প কিছু। প্রয়োজনের সময় খুব কাজে দেবে।

কৌটো
প্রসাধনী ব্যবহারের পর কৌটোটা ফেলেই দেয়া হয়। সব না ফেলে দিয়ে সুবিধা মতন কয়েকটা জমিয়ে রাখুন ঘরে। কোন তাকের ভেতর রেখে দিন এক কোণায়। ক্রিমের পেটমোটা ডিব্বাটা আপনার ক্লিপ, সেফটিপিন, কানের দুল, হেয়ারব্যান্ড রাখার জন্য কাজে লাগতে পারে। ছোট্ট লোশনের বোতলে ভ্রমণে যাওয়ার সময় বড় বোতল থেকে অল্প লোশন, শ্যাম্পু এসব ঢেলে নিতে পারেন। জিনিষপত্রের বোঝা তাতে কিছুটা তো কমবেই।
প্রিয় মগের হাতলটা ভেঙ্গে গেছে হঠাৎ। বাতিল জিনিষের খাতায় তুলে ফেলে দিচ্ছেন। না ফেললে কিন্তু অনেক কাজেই লাগানো সম্ভব মগটাকে। ছোট্ট কোন গাছ রাখতে পারেন এমন মগে। বা কলমদানি হিসেবে টেবিলেও থাকতে পারে মগটা।

 

সব বাতিল জিনিষকেই পুরোপুরি বাতিল করে দেয়ার আগে তাই আরেকবার ভেবেই নিন, নতুন করে কোন কাজে লাগানো যাবে কিনা! হয়তো কাজে লেগে গেলো যা কিনা একটু আগে আপনি ফেলেই দিচ্ছিলেন।

 

 

লিখেছেন –   মুমতাহীনা মাহবুব

ছবি –  দ্যাস্টার.কম.পিএইচ

Comments

comments

Recommended