মেকাপ

মেক আপের আগে এবং পরে

মেক-আপ নিয়ে নারীদের আগ্রহের যেন কোন কমতি নেই। বর্তমান যুগে মেকাপ করেন না অথবা পছন্দ করেন না এমন নারী খুঁজে পাওয়া কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তবে অনেকেরই অভিযোগ মেক-আপ করলে চেহারা তে ব্রন বা র‍্যাশ উঠে। আবার কারো অভিযোগ, যতই চেষ্টা করেন না কেন, ফেস এ ফাউন্ডেশন বা প্যান কেক ঠিক মত বসে না। মেক-আপ নিয়ে আলোচনা অনেক হয়েছে। আজকে আমরা মেক-আপের আগের এবং পরের সমস্যা অর্থাৎ কীভাবে ফেস এ ভালো মত ফাউন্ডেশন বসবে এবং কীভাবে মেক-আপ রিমুভ করলে আপনার ত্বক ফ্রেশ ও সুস্থ থাকবে, সেটি নিয়ে কথা বলব।

ফাউন্ডেশন লাগানোর পূর্ববর্তী কিছু টিপস:

মেক-আপের পর এখন ত্বকে বিন্দু বিন্দু ঘাম জমা শুরু করে মাঝে মাঝে। যাদের ত্বক অয়েলি তাদের তো এখন থেকেই ত্বকের বিশেষ প্রস্তুতির প্রয়োজন মেক-আপ করার আগে। ভারী মেক-আপ করার আগে আপনার ত্বক কে প্রস্তুত করে নিন এভাবেঃ

  • ২ চা চামচ মুসুর ডালের গুঁড়ো সামান্য পানি এবং ৪/৫ ফোঁটা লেবুর রসের সাথে মিশিয়ে ফেস এ ম্যাসেজ করুন। এটা স্ক্রাবিং এর কাজ করবে। স্কিন নরমাল হলে লেবুর বদলে অলিভ অয়েল দিতে পারেন।
  • এবার ফেস ভালো মত ধুয়ে তাতে যে কোন ভালো উপ্টান লাগান।
  • উপ্টান শুকিয়ে গেলে ফেস ধুয়ে নিন এবং টোনার হিসেবে শশার রস ৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন ফেস এ।
  • এবার বরফ কুচি করে মুখের ওপর ভালো মত ঘষুন। এটি করতে সমস্যা হলে একটা ছোট তোয়ালে মুখের ওপর রেখে তার ওপর দিয়ে পুরো ফেসে এক/দুই টুকরো বরফ ঘষুন।
  • এবার ফেস ভালো মত মুছে, আপনার স্কিনের ধরণ অনুযায়ী যেকোনো ভালো moisturizer খুব হালকা করে লাগান। ব্যাস আপনার ত্বক মেক-আপের জন্য প্রস্তুত। এ পুরো প্রক্রিয়াটি ফলো করলে মেক-আপ অনেক দীর্ঘস্থায়ী হয়।
  • তবে মিডিয়াম কভারেজের মেক-আপ করলে অথবা হাতে সময় কম থাকলে শুধু প্রথম ধাপটি করতে পারেন, তবে এক্ষেত্রে স্ক্রাবিং এর আরও ১০ মিনিট পরে (ডালের গুঁড়ো শুকিয়ে গেলে) ফেস ধুতে হবে।

এবার আসুন মেক-আপ রিমুভিং এর কথায়। “কমদামি প্রসাধনী ব্যবহার করলে, ত্বকে সমস্যা দেখা দেয়” এ কথাটা শুনতে শুনতে আমাদের সবার মুখস্ত হয়ে গিয়েছে। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় MAC বা Nars এর মত বিখ্যাত ব্র্যান্ডের অরিজিনাল প্রোডাক্ট ব্যবহারের পরেও মুখে র‍্যাশ বা ব্রন হচ্ছে। এর প্রধান একটি কারণ হতে পারে মেক-আপ ঠিকমতো না রিমুভ করা। আমরা মনে করি, ফেসওয়াশ দিয়ে এক বারের জায়গায় তিনবার ফেস ধুলেই মেক-আপ উঠে যায়। তবে প্রকৃতপক্ষে আপনার স্কিন এতে অনেক ড্রাই হয়ে যায় কিন্তু ভিতর থেকে পরিষ্কার হয় না। মেক-আপ রিমুভিং এর ক্ষেত্রে এই কয়েকটি ধাপ ফলো করতে পারেনঃ

  • অলিভ অয়েল হচ্ছে সব চেয়ে ভালো মেক-আপ রিমুভার। তবে ঘরে অলিভ অয়েল না থাকলে নারিকেল তেলও ভালো কাজ করে। তুলো দিয়ে ছোট করে বল বানিয়ে, তাতে তেল দিয়ে পুরো ফেস (গলা, হাত, পিঠে মেক-আপ করলে সেখানেও লাগাবেন) এর মেক-আপ তুলুন। চোখের মাস্কারা এবং আই লাইনার আস্তে আস্তে তুলুন। এক্ষেত্রে ৩/৪ বার তুলো চেঞ্জ করতে হতে পারে। আই লাইনার যত ওয়াটার প্রুফই হোক না কেন, সেটা অলিভ/নারিকেল তেল দিয়ে পুরোটাই তুলে ফেলা যায়।এর পর খুব অল্প পরিমাণ ফেস ওয়াশ নিয়ে সেটি দিয়ে সার্কুলার motion এ ফেস এ ম্যাসেজ করে ধুয়ে ফেলুন। খুব বেশি ফেনা করারা প্রয়োজন নেই।
  • এবার আশা যাক সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপে। আপনার ফেস ও গলায় এবার উপ্টান লাগান। শুকিয়ে গেলে ভালো করে ধুয়ে মুখে moisturizer লাগান। মেক-আপ রিমুভিং এর ব্যাপারটা একটু কষ্টসাধ্য এবং সময় সাপেক্ষ তবে এটি ঠিকমত এবং নিয়মিত করলে ত্বকের অনেক সমস্যা এড়ানো সম্ভব।

 

ব্যাক্তিগত প্রোডাক্ট:

আমার ত্বক অয়েলি, যা May/June এর দিকে হাইপার অয়েলি হয়ে যায়। উপরোক্ত ধাপ গুলো অনুসরণ করার সময় আমি ব্যাক্তিগত ভাবে কিছু প্রোডাক্ট ব্যবহার করি। সেগুলো হচ্ছেঃ

  • লিজান উপ্টান
  • Ambassador Olive Oil
  • Garnier Sakura White Pinkish Radiance gentle cleansing Foam
  • Nivea Soft Moisturizing Cream

তবে এখানে আমি শুধু আমার ব্যাক্তিগত ব্যবহারের কথা বললাম। এগুলো আমাকে সুট করলেও, আপনাদের নাও স্যুট করতে পারে। আশা করি লেখাটি আপনাদের সাহায্য করবে। ভালো থাকবেন সবাই।

ছবি- ফ্যাশানাইজার্স ডট কম

লিখেছেন- সামিরা মৌরিন

 

 

Recommended


Comments

comments

4 Comments

Leave a Comment

*