ক্র্যাফট(DIY)

শীতের ফ্যাশনেবল সোয়েটার

অনেক ধরনের স্টাইলিশ সোয়েটারের ভিড়ে আমাদের বাসায় এমন অনেক নরমাল সোয়েটারই রয়েছে যেগুলো খুব একটা পরা হয় না। বাসায় পড়ে থাকা আপনার সেই সাদামাটা সোয়েটারটি খুব সহজেই করে তুলতে পারেন সুন্দর এবং ফ্যাশনেবল।

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

- একটি সোয়েটার

- একটি বড় কাপড়

- কাঁচি

- গ্লু/ আঠা

- স্কেল

পদ্ধতিসমুহঃ

- আপনার পছন্দের কালারের একটি কাপড় নিন এবং কাপড়টি লম্বা এবং পাশে ৫ ইঞ্চি করে কাটুন।

image00

- এবার কাটা কাপড়টি প্রথমে অর্ধেক করে ভাঁজ করে নিন এবং ভাঁজ করা অংশের একপাশে ‘হার্ট’ শেইপের অর্ধেক আঁকুন। এখন সেই দাগ দেয়া অংশের উপর দিয়ে কেটে নিন। কাটা শেষে কাপড়টি হার্ট শেইপের হবে দেখতে। এভাবে আরেকটি কাপড় কাটুন। কারণ এই দুটো দুই হাতায় লাগানোর জন্যে।

image03

- কাটা শেষে কাপড়ের চারপাশে আঠা লাগান যাতে কাপরের কিনারের দিক থেকে পরবর্তীতে সুতা বের না হয়। আঠা লাগানোর পর এক ঘণ্টা রেখে দিন শুকানোর জন্য।

image01

- হাতায় কাপড় দুটো লাগানোর আগে সোয়েটার পরে নিন এবং দুই হাতের কনুইয়ের এক ইঞ্চি উপরে একটি পিন লাগিয়ে রাখুন। এতে করে কাপড়ের টুকরা দুটো লাগানোর সময় একটা ধারণা পাওয়া যাবে যে কোথায় লাগাবেন।

image05

- এবার হার্ট শেইপে কাটা কাপড়ের টুকরা দুটির পেছনে আঠা লাগিয়ে নিন।

image04

- এরপর পিন দিয়ে আটকানো দুই হাতার নির্দিষ্ট জায়গায় সেই কাপড়ের টুকরা দুটি আঠা দিয়ে ভালো মতো লাগান।

image06

- এবার বড় হার্ট শেইপের কাপড় কাঁটার পালা যা সোয়েটারের মাঝখানে লাগানো হবে। পছন্দের কালারের একটি কাপড় নিয়ে অর্ধেক করে ভাঁজ করুন। এরপর সেই ভাঁজ করা কাপড়ের একপাশে আগের মতই হার্ট শেইপ করে কলম দিয়ে দাগ দিন। খেয়াল রাখবেন যাতে এটি লম্বায় ১০ ইঞ্চি এবং পাশে ১২ ইঞ্চি হয়। এবার দাগ বরাবর দুইদিকে কাটুন।

image07

- বড় হার্ট শেইপে কাপড়টি কাটা শেষ হলে এবার এর পেছনে ভালো মতো আঠা লাগিয়ে নিন এবং সোয়েটারের যেখানে লাগাবেন সে জায়গার চারপাশে পিন দিয়ে আটকে নিন।

image08

- এবার কাটা হার্ট শেইপের কাপড়টি সোয়েটারের মাঝখানে আঠা দিয়ে ভালো মতো লাগিয়ে নিন। আঠা লাগানোর পর কমপক্ষে ৩ ঘণ্টা রেখে দিন ভালো মতো শুকানোর জন্য। ব্যাস! বানানো হয়ে গেল শীতের ফ্যাশনেবল সোয়েটার। তাহলে আর দেরি না করে আজই আপনার সাধারণ সোয়েটারটিতে নিয়ে আসুন নতুনত্বের ছোঁয়া।

লিখেছেনঃ নাহার

ছবিঃ লাইফঅ্যানস্টাইল. কম

Recommended


Comments

comments

2 Comments

Leave a Comment

*