অন্যান্য, ক্যারিয়ার

ফেইসবুকে পেইজ তৈরি করবেন?

আমরা অনেকেই বাড়িতে নিজের হাতে অনেক শৌখিন জিনিসপত্র তৈরি করতে পারি অথবা কেউ হয়তো দেশি-বিদেশি মজার মজার অনেক কিছুর ছবি সংগ্রহে রাখতে পছন্দ করি। হয়তো বা শৌখিনতার বশে করা কোন কাজের একটু বাণিজ্যিক রূপ দিতে চাই। সেক্ষেত্রে ফেইসবুকে একটা পেইজ করা থাকলে অনেক সুবিধা হয়। ডিজিটালাইযেশানের এই যুগে সবাইকে শখের জিনিসটার কথা জানাতে তাহলে আর বেশি বেগ পেতে হয় না। তবে ফেইসবুকে পেইজ তৈরি করাটা অনেকের কাছেই বেশ ঝামেলার। সত্যি বলতে কোন ঝামেলাই এখানে নেই। আজকালতো প্রায় সব বিষয়েই ফেইসবুকে পেইজ তৈরি করা হচ্ছে। তো আপনি আর পিছিয়ে থাকবেন কেন? আসুন জানিয়ে দিচ্ছি ফেইসবুকে পেইজ তৈরির কৌশলটা।

ফেইসবুক পেইজ আসলে কি?

ফেইসবুক পেইজ, সচরাচর যা ফ্যান পেইজ নামে পরিচিত, এটি যেকোনো কিছুর জন্য তৈরি করা যায় facebook.com ডোমেইনের আন্ডারে। সেলিব্রিটি, বাণিজ্য কিংবা আপনার যা খুশি (আইনগতভাবে বৈধ) তা নিয়ে আপনি একটি ফ্যান পেইজ তৈরি করতে পারেন। ধরে নিন এটা একটা মিটিং প্লেসের মত যেখানে আপনি অনেক তথ্য বা আইডিয়া অথবা লিঙ্ক শেয়ার করতে পারবেন, বার্তা আদান-প্রদান করতে পারবেন, ব্লগের মত নিয়মিত আপডেইট দিতে পারবেন। যে কেউ এই ফ্যান পেইজ তৈরি করে নিতে পারেন, দরকার শুধুমাত্র ফেইসবুকে একটি অ্যাকাউন্ট।

শুরু করবেন কিভাবে?

নতুনদের জন্য কি করে ফ্যান পেইজ বানাতে হয় সেটা একটা রহস্যই! কারণ ফেইসবুক তার প্রণালী কিছুদিন পরপরই পরিবর্তন করে এবং নামও পালটায়।

যাই হোক, আপনি আপনার টাইম লাইনের বাঁ দিকের কলামে একটি সেকশানে Pages নামে একটি বাটন দেখতে পাবেন। এর উপর মাউস কার্সরটি রাখুন, ডান পাশে একটি অপশান পাবেন যার নাম More, সেখানে একবার ক্লিক করলেই আপনার তৈরি করা পেইজের একটি তালিকা চলে আসবে। আর পেইজ না থাকলেও একটি অপশান আসবে “+ Create a Page.”এ নামে।

এবার পেইজ তৈরি করুন

fp01

এখানে আপনি ৬টি ক্যাটাগরি পাবেন। সেখান থেকে আপনি যেটা খুঁজছেন সেখানে ক্লিক করুন। এরপর সেটির আরও সাব-ক্যাটাগরি বের হবে। এই ধাপ শেষ হলে আপনাকে এবার পেইজের নাম লিখতে হবে। এরপর পেইজের কাস্টমাইযেশানের দিকে আপনাকে নজর দিতে হবে।

fp02

এই পর্যায়ে Get Started বাটনে ক্লিক করুন। সঠিক ক্যাটাগরি বাছাইয়ের পর এবং কিছু Basic তথ্য দেয়ার পর আপনি এবার আপনার পেইজের জন্য দরকারী তথ্যগুলো সংযোজন করতে পারবেন।

fp03

এবারে পেইজকে উপস্থাপন করবে এমন একটি প্রোফাইল পিকচার বেছে নিন আপনার কম্পিউটার বা ওয়েবসাইট থেকে। তারপর চিত্রের মত করে সেইভ করুন।

fp04

এবারে পেজের অ্যাবাউট সেকশনটা এডিট করুন। Basic তথ্যগুলো দিন, যা আপনার পেইজ সম্পর্কে ধারণা তৈরি করবে এবং ওয়েবসাইট থেকে থাকলে তার এড্রেসটাও দিন। চাইলে ওয়েব এড্রেসের স্থানে টুইটার এড্রেসও দেয়া যায়। এরপর একদম শেষের প্রশ্নটির উত্তর দিয়ে সেইভ করুন।

fp05

এবার সিদ্ধান্ত নিন আপনি পেইজের জন্য অ্যাড দিবেন কিনা। বেশি সংখ্যক ফ্যানের কাছে পৌছতে হলে অ্যাড খুব দারুণ একটি উপায়। তবে এর জন্য আপনাকে টাকা পরিশোধ করতে হবে এবং আপনার ক্রেডিট কার্ডের ইনফরমেশন দিতে হবে। সুতরাং অ্যাড দিতে চাইলে Enable Ads এ ক্লিক করুন আর না চাইলে Skip করুন।

পেইজকে আরও উন্নত করুন

০১। এবারে ফ্যান বাড়ানোর জন্য পেইজের আরও কিছু তথ্য দিন। যা করতে হবেঃ

fp06

• পেইজে নিজেই আগে লাইক দিন।

• একটি স্ট্যাটাস দিন যা করতে চাইছেন সে সম্পর্কে। এতে করে পেইজটি আর খালি খালি লাগবেনা আর ফ্যানরা পেইজে প্রবেশ করেই পেইজ সম্পর্কে একটি ধারনা পাবে।

• আরও বেশি করে ছবি আপলোড করুন।

• একটি কভার ফটো দিন।

 ০২। পেইজের উন্নয়নের জন্য ৩টি সাব-ক্যাটাগরি এডিট করুন। যেমনঃ

fp07

প্রথমে Edit Page এ ক্লিক করুন। এখানে আপনি পেইজকে আপডেইট করতে পারবেন, পারমিশান ম্যানেইজ করতে পারবেন, নতুন অ্যাডমিন নিয়োগ দিতে পারবেন, নোটিফিকেশান ম্যানেইজ করতে পারবেন, আক্টিভিটি লগ ব্যবহার করে আপনার রেগুলার কাজকর্ম দেখতে পারবেন এবং ব্যান করা ফ্যানদের তালিকা দেখতে পারবেন।

এরপর Build Audience বাটনটিতে ক্লিক করে আপনি আপনার ইমেইল কন্ট্যাক্টস ও ফেইসবুক ফ্রেন্ডদেরকে পেইজে লাইক দেয়ার ইনভাইটেশান পাঠাতে পারবেন, পেইজকে শেয়ার করতে পারবেন এবং অ্যাডও তৈরি করতে পারবেন।

তারপর পেইজ কিভাবে পরিচালনা করতে হয় এ নিয়ে কোন জিজ্ঞাসা থাকলে আপনি Help বাটনে ক্লিক করে সব টিপস জেনে নিতে পারবেন।

০৩। এবারে পেইজটি ভালো ভাবে পরিচালনা করুন। নিয়মিত আপডেইট দিন, যাতে ফ্যানরা আপনার পেইজের সংস্পর্শে থাকে। যা করতে হবেঃ

fp08

• নিয়মিত আপনার ব্যবসায় বা যা নিয়ে পেইজ খুলেছেন সে বিষয়ে তথ্য শেয়ার করুন। তবে এত বেশি করবেন না, যাতে করে ফ্যানরা বিরক্ত বোধ করে।

• প্রাসঙ্গিক হলে ছবিও শেয়ার করুন।

• নতুন কারও সাথে ফেইসবুকে বন্ধুত্ব হলেই তাকে পেইজে লাইক দেয়ার ইনভাইটেশান পাঠান।

কিছু টিপসঃ

• ব্যক্তিগত জীবনেও কাছের মানুষদের সাথে পেইজের ব্যাপারে আলাপ করতে পারেন, তাদেরকে জানাতে পারেন আপনার পেইজের কথা।

• আপনার পেইজের লিঙ্ক এড্রেসটা আপনার বিজনেস কার্ডেও উল্লেখ করে রাখতে পারেন।

লিখেছেনঃ নুজহাত

ছবিঃ উইকিহাউ ডট কম ও স্কুইডু ডট কম

Comments

comments

Recommended