ক্র্যাফট(DIY)

হ্যান্ডমেইড কার্ডে ফুটিয়ে তুলুন আপনার ভালবাসা

প্রিয়জনকে খুব মনের মত করে একটি উপহার দিতে কার না ইচ্ছে করে? কিন্তু বাজারে পাওয়া সব কিছুই উপহার দেয়া হয়ে গেছে? কিংবা কোনকিছুই মনমত হচ্ছে না ? তাহলে মনের মাধুরী মিশিয়ে বানিয়ে দিন একটি কার্ড! আপনার লুকিয়ে থাকা নৈপুণ্যটাও প্রকাশ পাবে আর সেই সাথে ভালবাসাটাও ফুটে উঠবে!

ভালবাসা দিবস, মা দিবস, বাবা দিবস অথবা যেকোন উৎসবে এটি একটি আলাদা মাত্রা যোগ করবে। শুধু একটুখানি সময়, ধৈর্য্য আর শ্রম লাগবে কার্ডটি সুন্দর করে তৈরি করতে।

যা যা লাগবেঃ

০১। পছন্দমত হ্যান্ডমেইড কাগজ

০২। পছন্দমত নানা রঙের ফিতে

০৩। পেন্সিল

০৪। সবুজ রঙের পেন্সিল (ফুলের কাণ্ড আকার জন্য)

০৫। বড় সুঁই

০৬। কাঁচি

০৭। সুপার গ্লু

card02

এগুলো সবকয়টিই নিউ মার্কেটের মনিহারী দোকানগুলোতে পাওয়া যাবে। ফিতে গাউসিয়া, ইসমাইল ম্যানশন, চাঁদনী চকে অনেক রকমের পাওয়া যাবে।

পদ্ধতিসমূহ

০১.

• কাগজে হালকা করে ফুলের তোড়ার আউটলাইনটি পেন্সিলে এঁকে নিন।

card 2

• ফুলের কাণ্ডগুলোকে আড়াআড়িভাবেও আঁকা যায়।

• কার্ডটি যত বড়ই হোক, সামনের দুই-তৃতীয়াংশ জায়গা জুড়ে ফুলের তোড়াটি আঁকার চেষ্টা করুন।

• প্রত্যেকটি ফুলের কুঁড়ির দৈর্ঘ্য দিন ফিতের প্রস্থের সমান করে।

• পেন্সিলের দাগগুলো হালকাভাবে দেবেন, যাতে দরকার হলে মুছে ফেলতে পারেন।

০২. কাণ্ডে ও পাতায় সবুজ রঙ দিন।

card 3

০৩. সুঁই দিয়ে যেখানে ফিতে দিয়ে ফুলের কুঁড়ি সেলাই করতে চান, সেখানে ছিদ্র করুন।

card4

০৪. ফিতাটি সুঁইয়ে ছবির মত করে গেঁথে নিন

 card5

০৫.ছিদ্র করা জায়গাগুলোতে ফিতে ঢুকিয়ে নিন, অপর পাশে গিঁট দিতে হবে না। কেবল ফিতের শেষ মাথাটি ধরে রাখবেন।

card6

০৬.ফুলের কুঁড়ির অন্য প্রান্ত দিয়ে বের করে দিন ছবির মত।

card7

০৭. প্রয়োজনানুসারে সেলাই করুন কার্ডটিকে। ফিতেটাকে একটু ঢিলে করে রাখুন,যাতে করে কার্ডের সামনের দিকে ফুলটি একটু ফুলে থাকে।

card8

০৮. চাইলে ফিতেটাকে একটু পেঁচিয়েও দিতে পারেন। এতে করে কার্ডের লুকটাই পাল্টে যাবে।

card 9

০৯.সবগুলো ফুল গাঁথা হয়ে গেলে এবার ফিতেটাকে কার্ডের পেছনে বেঁধে দিন শুধু একটু গিঁট দিয়ে। গিঁট যেন খুব বড় না হয়ে যায়।

card 10

১০.কাণ্ডগুলো যেখানে আড়াআড়িভাবে মিশেছে, সেখানে একটি ফিতের বো সেলাই করে দিতে পারেন অথবা সুপার গ্লু দিয়েও লাগিয়ে নিতে পারেন।

card final 1

১১. কার্ডের পেছন দিকটি আরেক টুকরো কাগজ দিয়ে ঢেকে দিন। এতে করে পেছনের অসংলগ্ন ব্যাপারগুলো চোখে পড়বে না।

কয়েকটি টিপসঃ

• হাতে আউটলাইন আঁকতে না চাইলে বা পারলে কম্পিউটারে প্রিন্ট করিয়ে নিন।

• ফিতের আঁশ বের হয়ে যাওয়া এড়াতে আড়াআড়িভাবে কাটুন সোজা করে না কেটে।

• কার্ডে ছিদ্র করার সময় খেয়াল রাখবেন, যাতে কার্ডটি বাঁকা বা ভাঁজ হয়ে না যায়।

এবার তাহলে যাকে উপহার দেবেন তার উদ্দেশ্যে সুন্দর দু’টো লাইন লিখে পাঠিয়ে দিন কার্ডটি! ছড়া, কবিতা, গান অথবা আপনার লেখার হাত ভালো থাকলে এ কাজটি আরও সহজ হয়ে যাবে তাহলে। শুভ কামনা।

লিখেছেনঃ নুজহাত

ছবিঃ উইকিহাউ

Comments

comments

Recommended