অন্যান্য, সম্পর্ক, সম্পাদকের পছন্দ, হাল ফ্যাশন

কী দেব তোমায় উপহার ?

উপহার পেতে আমরা কে না ভালবাসি ? আর তা যদি পাওয়া যায় প্রিয়জনের কাছ থেকেই, তবেতো কথাই নেই ! সামাজিকতা রক্ষায়ই হোক আর ভালবেসেই হোক, ছোট্ট একটি উপহারই কিন্তু বদলে দিতে পারে আপনার সম্পর্কের মাত্রাটিকে । তবে পুরুষ বা নারী ভেদে কাকে, কী উপহার দিতে হবে, এ নিয়ে আমরা প্রায়ই বেশ ফ্যাসাদে পড়ে যাই । এই লেখায় সেই ধরণের কিছু টিপস দেয়ার চেষ্টা করছি ।

অলংকারঃ

খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, ভাবা হত গহনা বুঝি শুধু নারীরাই পরে থাকে । এখন এটি একটি ভুল ধারণা । পুরুষরাও এখন গহনা খুব পছন্দ সহকারেই পরে থাকে । উপহার দেয়ার ক্ষেত্রেও রুচি বুঝে আপনি গহনা বাছাই করতে পারেন । যাকে উপহার দেবেন, তিনি নারী হলে গলার হার, পেন্ডেন্ট কানের দুল, ব্রেসলেট, আংটি এসব দিতে পারেন আর পুরুষদের জন্য বেছে নিন ব্রেসলেট, ঘড়ি, লকেট অথবা আংটি । অনেক পুরুষ আবার এক কানে দুল পরতেও পছন্দ করেন । উপহারে বিশেষত্ব আনতে প্রিয়জনের পছন্দের রঙ অথবা শুভ রত্নকেও প্রাধান্য দিতে পারেন ।

ফুলঃ

ফুল ভালবাসেনা এমন মানুষ পৃথিবীতে খুব কমই আছে । একগুচ্ছ গোলাপ অথবা নানা ধরণের ফুল মিলিয়ে একটি তোড়া বানিয়ে প্রিয়জনকে উপহার দিন । এক্ষেত্রে প্রিয় রঙ বা প্রিয় ফুল কী তা জেনে নিতে পারেন । অথবা প্রকৃতির সাথে মিল রেখেও প্রিয়জনকে ফুল উপহার দিয়ে চমকে দিতে পারেন । অর্থাৎ আষাঢ়ে একগুচ্ছ কদম অথবা ফাল্গুনে একগুচ্ছ আগুনরঙা পলাশ কিংবা রাধাচূড়া !

গানঃ

কখনো কথায় কথায় এক ফাঁকে জেনে নিন প্রিয়জনের পছন্দের কণ্ঠশিল্পী অথবা ব্যান্ডের নাম । মাঝে মাঝে সিডি অথবা মিউজিক গিফট কার্ড উপহার দিয়ে চমকে দিন তাকে । অথবা বাজাতে জানলে তাকে গিটার, মাউথ অর্গান, বেহালা কিংবা অন্য যেকোনো বাদ্যযন্ত্রও উপহার দিতে পারেন ।

খেলাধুলাঃ

আপনার প্রিয় মানুষটি খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী হয়ে থাকলে, তাকে তার প্রিয় দলের ম্যাচের টিকিট উপহার দিতে পারেন । স্থান যদি দেশের বাইরে হয়, তবে তার সাথে আগেই আলোচনা করে নিন । আর নির্দিষ্ট পছন্দের কোন খেলোয়াড় থাকলে তার সাথে দেখা করার ব্যবস্থাও করে দিতে পারেন দলটির জনসংযোগ বিভাগের সাথে কথা বলে ।

রোমান্সঃ

ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের আয়োজন করতে পারেন । খ্যাতিমান কোন রেস্তোরাঁয় অথবা নিজের বাসায় নিজ হাতে রান্না করেও খাওয়াতে পারেন আপনার কাছের মানুষটিকে । এক্ষেত্রে একেবারে ভিন্ন কোন রেসিপি নিয়ে চেষ্টা করে দেখতে পারেন, অথবা তার পছন্দের খাবারটিও রেঁধে রাখতে পারেন । রাঁধার সময় তার সাহায্য নিয়েও রাঁধতে পারেন ।

পোশাকঃ

সঙ্গীকে তার স্টাইলের সাথে মানানসই, এমন কিছু পোশাক কিনে দিতে পারেন । অথবা তার পছন্দের আউটলেটে তাকে নিয়েও শপিং-এ যেতে পারেন । তবে অবশ্যই দোকানের পোশাক ফেরত কিংবা বদলে নেয়ার পদ্ধতি জেনে নেবেন এবং রিসিপ্ট নিতে ভুল করবেন না ।

শিল্পকর্মঃ

শিল্পের প্রতি আপনার প্রিয়জনের অনুরাগ বুঝে তাকে নামী কোন শিল্পীর পেইন্টিং, শো-পিস ইত্যাদি উপহার দিতে পারেন । কোন প্রদর্শনীতেও বেড়াতে নিয়ে যেতে পারেন ।

শখঃ

প্রিয়জনের শখের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে তাকে তার শখ চর্চার জন্যও কিছু একটা উপহার দিতে পারেন । যেমন – বাগান করতে পছন্দ করলে তাকে এই সম্পর্কিত বই অথবা দুর্লভ গাছের চারা ইত্যাদি উপহার দিতে পারেন । বই পড়তে পছন্দ করলে প্রিয় লেখকের বই-ও দিতে পারেন । অনেকেই কবিতা পড়তে ও আবৃত্তি করতে ভালবাসেন । তাদের জন্য কবিতার বই, সিডি অথবা আবৃত্তি অনুষ্ঠানেও নিয়ে যেতে পারেন । এছাড়া অনেকেই ম্যাগাজিন-ও পড়তে বা সংগ্রহ করতে ভালবাসে, সেইদিকেও নজর দিতে পারেন ।পুরনো অ্যান্টিক সামগ্রীর প্রতিও অনেকেরই দুর্বলতা থাকে । উপহার হিসেবে সেটিও কিন্তু অমূল্য !

চকোলেটঃ

চকোলেটের পোকা আমরা কমবেশি সবাই ! আর সেই জিনিস উপহার হিসেবে পেলেতো যারপরনাই খুশি হই । প্রিয় ব্র্যান্ডের কোন একটি চকোলেট বা এক বক্স হরেকরকম চকোলেট-ও উপহার হিসেবে মন্দ নয় ।

প্রসাধনীঃ

মেয়েদের ক্ষেত্রে নামী ব্র্যান্ডের মেক-আপ সামগ্রী, সুগন্ধি ইত্যাদি উপহার দেয়া যায় । ছেলেদের ক্ষেত্রেও সুগন্ধি, বডি স্প্রে, আফটার শেইভ লোশান ইত্যাদি দেয়া যেতে পারে ।

অন্যান্যঃ

এছাড়াও ব্যাগ, জুতো, কার্ড, সিনেমার টিকিট, লাঞ্চ/ডিনার অফার, ছোটখাটো ভ্রমণ, একটু বেশি বাজেট থাকলে গাড়ি অথবা বাইক কিংবা একটি ফ্ল্যাটও উপহার হিসেবে দেয়া যায় কিন্তু !

উপহার দিয়ে এখন থেকে সঙ্গীকে তাহলে চমকে দিন ! অটুট থাকুক আপনাদের সম্পর্ক । শুভ কামনা ।

লিখেছেনঃ নুজহাত

Recommended


Comments

comments

2 Comments

Leave a Comment

*