হাল ফ্যাশন

রঙ্গীন সঙ্গী – ছাতা

প্রখর রোদ থেকে শরীর বাঁচাতে প্রয়োজন একটি ছাতার। আরো একটু বৈজ্ঞানিক ভাবে বলতে গেলে ছাতা শুধু রোদের তাপ থেকেই রক্ষা করে না, ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি থেকেও শরীর বাঁচায়। ত্বককে রক্ষা করে। তাই প্রয়োজন ছাতার। ছাতা চিহ্নটি সুরক্ষার প্রতীক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। আসছে আষাঢ়ের দিন। এই সময়টা এমন যে মাঝেমধ্যে টানা বৃষ্টি লেগেই থাকে। আবার কখনো এই রোদ এই বৃষ্টি। সময়টাই যেন এমন। সঙ্গে রয়েছে ভ্যাপসা গরম। আবহাওয়ার এমন আচরণে চলতি পথে পড়তে হয় বিপাকে। ধরুন, সকালে দেখলেন রোদের ঝিলিক, মাঝপথে বৃষ্টি।সেক্ষেত্রে একবার ভাবুন তো আপনার প্রিয় সঙ্গীটির কথা; যে রোদ-বৃষ্টির হাত থেকে আপনাকে বাঁচায়, যার ছায়াতলে থেকে নিশ্চিন্তে পথ চলতে পারেন, যাকে ছাড়া গ্রীষ্ম-বর্ষার দিনগুলো একদমই চলে না। ঠিক ধরেছেন। প্রয়োজনের সেই সঙ্গী ছাতার কথাই বলছি।আপনার দ্বিধান্বিত হওয়ার কিছু নেই। এই ছাতাটিও হতে পারে আপনার ফ্যাশনেরই একটা অংশ। ছাতার জগৎ এখন পুরোটাই রঙ্গিন। যা আপনার স্মার্ট লুকটাকে বরং আরেকটু বাড়িয়ে দিতে পারে। ফ্যাশনের কথা মাথায় রেখেই আপনি বেছে নিতে পারেন বাহারি ডিজাইনের বাহারি রং এর ছাতা।

umbrella

কেমন ছাতা কিনবেনঃ

নানা রং ও নকশার বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ছাতা পাওয়া যায় বাজারে। দামদরেও ভিন্নতা দেখা যায়।বাজারে দুই রকমের ছাতা বেশি পাওয়া যায়। বড় কালো ছাতা এবং ভাঁজযুক্ত ছাতা।এই ছাতাগুলো বেশ টেকসই। শিশুদের জন্য উজ্জ্বল রং ও নকশার ছাতা রয়েছে। এ ছাড়া পিবিসি নামে এক বিশেষ ধরনের ছাতা তৈরি হয় যা অনেকক্ষণ ধরে বৃষ্টি হলেও এই ছাতা সুরক্ষা দেয়। দেশী ছাতার পাশাপাশি বিদেশী ছাতার চাহিদাও রয়েছে। আকৃতিতে ছোট, সহজে বহনযোগ্য ও নানা রঙের সম্ভার থাকায় ভাঁজ করা যায় এমন ছাতার জনপ্রিয়তা রয়েছে । সুইচ দিয়ে খুলবে এবং বন্ধ হবে এমন ছাতাও আছে। বিশেষ করে মেয়েদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন রং এর বৈচিত্রময় ছাতা। বর্ষার সাথে আকাশী নীলের একটা মিল রয়েছে। হালকা নীল রংয়ের ছাতায় সৌন্দর্য্য ভালোই ফুটে ওঠে। এছাড়াও লাল, সবুজ, হালকা কমলা, বেগুনি, বিভিন্ন প্রিন্টের, পাতার নকশা ইত্যাদি রংয়ের-ডিজাইনের ছাতাও ব্যবহার করতে পারেন। আর পোশাকের সাথে মিল রেখেও ছাতার রং বেঁছে নিতে পারেন। এতে করে আপনার ফ্যাশনেবল ‘লুকটা’ আলাদা মাত্রা পাবে।শিশু ও বয়স্কদের জন্য লম্বা ধরনের ছাতাই ভালো।শিশু কিশোরদের জন্যও পাওয়া যাচ্ছে কার্টুন আঁকা ছাতা। সেই সাথে রয়েছে নানা আকৃতির ছাতা। লম্বা ডাট ওয়ালা ছাতা ছাড়াও দেশি ভাঁজ করা ফোল্ডিং ছাতা রয়েছে। ছোট ও সহজে বহনযোগ্য ছাতার চাহিদা সবচেয়ে বেশি। সুইচযুক্ত ছাতা না কিনে ম্যানুয়াল ছাতা কেনা ভালো। কারণ বিক্রেতাদের কাছে জানা যায় যে সুইচযুক্ত ছাতা ভেঙে গেলে সহজে মেরামত করা যায় না।তারা আরো জানান, যে জায়গা থেকেই ছাতা কেনেন না কেন, অপেক্ষাকৃত ভালো ব্র্যান্ডের ছাতা কিনবেন।দোকানেই বারবার ছাতা খুলে ও বন্ধ করে পরীক্ষা করে নিতে ভুলবেন না।বাজারে এখন দেশী বিদেশী নানা ব্রান্ডের ছাতা পাওয়া যাচ্ছে। দেশী ব্রান্ডের মধ্যে শরীফ ছাতা, রহমান, মুন, এটলাস, ফিলিপস, চেরী, ব্রার্দাস, মার্টিন, স্ট্যামফোর্ড বেশি বিক্রি হচ্ছে।পছন্দ অনুযায়ী কিনে নিন এক্ষুনি আর রোদ বৃষ্টি যাই হোক না কেন অবলীলায় বেরিয়ে পড়ুন আপনার পথের সাথী রঙ্গিন ছাতাটি নিয়ে।

fashion-umbrella-500x500

সতর্কতা

*ছাতার ওপরের দিক রঙিন হলেও নিচের দিক যেন সাদা বা ধূসর হয়।কারণ এটি তাপ ও বৃষ্টি রোধ করে।

*আট শিকের ছাতা না কিনে ১০ শিকের ছাতা কেনা ভালো।এটি দীর্ঘস্থায়ী।

*অ্যালুমিনিয়াম শিকের ছাতায় সহজে মরচে পড়েনা।

*ভেজা ছাতা ভালো ভাবে শুকিয়ে ভাঁজ করে রাখা উচিৎ।এতে অনেক দিন ছাতা ব্যবহার করা যায়।

*ছাতা কখনোই এলোমেলো ভাবে ভাঁজ করা উচিৎ নয়।

লিখেছেন বৈশাখী

Recommended


Comments

comments

Leave a Comment

*