মেকাপ

কেমন লিপস্টিক মানাবে আপনার ঠোঁটে?

সেই ৫০০০ বছর আগে ব্যাবিলনে মেসোপটেমিয়ান নারীরা প্রথম ঠোঁটে রঞ্জক পদার্থ ব্যবহার করা শুরু করে । সেই প্রচলন থেকেই আজকের লিপস্টিক ! এখনও লিপস্টিকের প্রতি নারীদের মোহ সেই আগের মতই অটুট আছে । ঠোঁট রাঙ্গানোর আগে তাই জেনে নিন কোন লিপ্সটিক শেডটি আপনার ত্বকের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ।

 

রঙ বাছাই করার আগে

জনপ্রিয় মেইক-আপ আর্টিস্ট ববি ব্রাউনের মতে, লিপস্টিকের শেড বাছাই করা উচিৎ আপনার ঠোঁটের প্রাকৃতিক রঙের সাথে সামঞ্জস্য রেখেই । অর্থাৎ, আপনার ঠোঁট যদি হয় ফ্যাকাশে, তবে লিপ্সটিক হিসেবে বাছাই করুন বিজ (হলদে-বাদামী), স্বচ্ছ অথবা হালকা গোলাপীর মতো শেডগুলো । গাঢ় বর্ণের ঠোঁটের জন্য বেছে নিন গাঢ় লাল, মেরুন, বারগ্যান্ডি, কফি ইত্যাদি উজ্জ্বল ও গাঢ় শেড । আর মিশ্র অর্থাৎ, না ফ্যাকাশে, না গাঢ় – এমন বর্ণের ঠোঁটের জন্য বাছাই করুন বাদামী, হালকা ম্যাজেন্ডা, মভ – এই শেডগুলো ।

গায়ের রঙের সাথেও মিলিয়ে নিন

আপনার লিপ্সটিক আপনার ত্বককে ভুলভাবে উপস্থাপন করতেই পারে, যদি তা সামঞ্জস্যপূর্ণ না হয় ত্বকের সাথে । টকটকে ফর্সা ত্বকে বাদামী-কমলা শেড যেমন অদ্ভুত দেখাবে, তেমনি শ্যামলা ত্বকেও হালকা গোলাপী খুব ভাল দেখাবে না ।

প্রত্যেকের স্কিন টোনেই একটা বিশেষত্ব থাকে । যেমন, শ্যামলা ত্বকে একটা হলদেটে বাদামী আভা থাকে, তেমনি ফর্সা ত্বকেও একটা গোলাপী আভা থাকে । আর এই আভাই হচ্ছে এক একটা ত্বকের ইউনিক পয়েন্ট । কাজেই আপনি যখন গায়ের রংকে প্রাধান্য দিয়ে লিপস্টিকের শেড বাছাই করবেন, স্বভাবতই আপনার গায়ের রঙই আপনাকে আরও মোহনীয় করে তুলবে !

রূপ বিশেষজ্ঞদের ভাষায় ত্বকের দুটো প্রকারভেদ আছে । একটিকে বলা হয় Warm Skin এবং অন্যটি হচ্ছে Cool Skin । কি দ্বিধায় পড়ে গেলেন তো ? চলুন তবে দেখে নেয়া যাক আপনার ত্বক Warm  না Cool ।

০১। আপনাকে রূপার গহনায় বেশি ভালো লাগে নাকি সোনার গহনায় ? যেটা আপনার রূপকে খুলে দেয়, সেটাই আপনার ত্বককে ভালভাবে সংজ্ঞায়িত করে । কারণ, Warm  Skin  এর জন্য সোনার গহনাই পারফেক্ট আর Cool Skin  এ রূপার গহনা ।

০২। রূপ বিশেষজ্ঞ লিসা এল্ড্রিজের মতে, আপনার দেহের ভেতরের রঙ অর্থাৎ পোশাকের ভেতরে থাকা অংশের রঙ দেখেও কিন্তু আপনি আপনার ত্বকের Warmness ও Coolness বিচার করতে পারেন । ত্বক যদি হয় ফ্যাকাশে এবং ত্বকের ওপর দিয়ে যদি আপনার নীল ধমনীগুলো স্পষ্ট দেখা যায়, তবে আপনার ত্বক Cool । আর ধমনী অস্পষ্টভাবে দেখা গেলে, আপনি Warm ত্বকের অধিকারী ।

০৩। ত্বকবিশেষজ্ঞের সাহায্য নিয়েও কিন্তু আপনি আপনার ত্বকের ধরণ নির্ণয় করে নিতে পারেন ।

 

এরপর কী করবেন ?

ত্বকের ধরণ জেনে নিলেন তো ? এবার তাহলে লিপ্সটিকে তা প্রয়োগ করুন । Warm ত্বকের জন্য বেছে নিন উজ্জ্বল শেড যেমন, কমলা, কফি, ক্যারামেল, সোনালি অথবা ব্রোঞ্জ আভাযুক্ত বাদামী ইত্যাদি । আর Cool ত্বকের জন্য বেছে নিন হালকা ও মিষ্টি রঙগুলোকে, যেমন হালকা গোলাপী, লালচে গোলাপী, চুনিলাল, গোলাপী আভাযুক্ত বিজ ইত্যাদি শেড ।

পরীক্ষা করুন কেনার আগে

লিপ্সটিক কেনার আগে সেই চিরাচরিত নিয়মে একবার পরীক্ষা করে নিন । আঙ্গুলের ডগায় অথবা হাতের কব্জির কাছাকাছি একটু লিপ্সটিক মেখে নিয়ে দেখতে পারেন শেডটি আপনার ত্বকের সাথে মানানসই কি না । কারণ, হাতের এই স্থানগুলোর বর্ণ আপনার ঠোঁটের বর্ণের কাছাকাছি । অথবা সম্ভব হলে একটি কটন বাডে কিছুটা লিপ্সটিক লাগিয়ে ঠোঁটেই মেখে দেখতে পারেন । এতে করে শেডের পাশাপাশি লিপস্টিকের বিন্যাসটাও বোঝা যাবে, যেমন ম্যাট, গ্লসি, শিমারি, শিয়ার ইত্যাদি । সাধারণত, ম্যাট লিপ্সটিকে ঠোঁটকে পাতলা দেখায় আর গ্লসি ও শিমারি লিপ্সটিকে ঠোঁটকে ভরাট দেখায় ।

এবার তাহলে বেরিয়ে পড়ুন পছন্দের লিপস্টিকটি বাগিয়ে নিতে । হ্যাপি শপিং !

লিখেছেনঃ নুজহাত

Recommended


Comments

comments

Leave a Comment

*